DSC_0474

 

 

 

 

 

 

 

ফেসবুকে আমার রান্নার বিশাল বিশাল পোষ্ট দেখে অনেকেই আমাকে সিদ্দিকা কবির বলে, পাগলও বলে! আসলে আমি এই “জার্মান প্রবাসে” এর জন্যই রান্না নিয়ে লেখা-লেখি করি, যেখানে আমারি মত অজস্র অর্ধভুক, ক্ষুধার্ত ব্যাচেলর স্টুডেন্টস আছে যারা সারাদিন একটু ভাল-মন্দ খাওয়ার জন্য বুক চাপড়ে কুই কুই করে। এই লেখালেখি গুলাই ফেসবুকে শেয়ার করি। তো সেই সকল হতভাগাদের জন্য (আমি সহ) আজকে একটা অসাম আইটেম দিচ্ছি যেটার নাম “মুরগী ঝাল ফ্রাই”। শুনে চোখে পানি চলে আসবে যে, এটা রান্নার পদ্ধতি আমরা বেঁচে থাকার জন্য যেভাবে ঝোল দিয়ে মুরগী রান্না করি, ৯০%-ই সেরকম। জাস্ট একটু দই আর টমেটো সস এড করতে হয়। এখন প্রশ্ন আসতে পারে, “ভাই, মুরগী ঝাল ফ্রাই তো ঝালে টকটকে লাল হয়, আপনার ঝাল ফ্রাই ফ্র্যাকাসে কেন?” আসলে ভাই, ছোট্ট একটা ভুল করে ফেলেছিলাম। রেসিপিতে আধা কাপ টক দই ঢালতে বলেছিল। আমি পুরোটাই ঢেলে দিয়েছিলাম! যাই হোক, সকলের সুবিধার্থে রন্ধন প্রণালীটি হুবুহু তুলে দেওয়া হলঃ

উপকরণঃ
– মুরগী ১টি
– আধা কাপ পিয়াজ বাটা
– আধা কাপ পিয়াজ কুচি
– আধা টেবিল চামচ আদা বাটা
– আধা টেবিল চামচ রসুন বাটা
– ১ চা চামচ মরিচ গুঁড়ো
– আধা চা চামচ হলুদ গুঁড়ো
– ১ চা চামচ ধনে-জিরা গুঁড়ো
– ৩/৪ টি এলাচ
– ২ খণ্ড দারুচিনি
– ২ টি তেজপাতা ১-২ টি
– ৮/১০ টি গোলমরিচ
– ১ টেবিল চামচ ঘি ( ঘি না থাকলে তেল দিয়েও কাজ সাড়া যাবে)
– ২ টেবিল চামচ টমেটো সস
– আধা কাপ টক দই
– আধা কাপ তেল ১/২ কাপ
– ১০ টি কাঁচা মরিচ ফালি (ইচ্ছামতো ঝাল বুঝে)
– ৩ টি লবঙ্গ লং ২-৩ টি
– আধা চা চামচ চিনি
– লবন স্বাদমতো

পদ্ধতিঃ
– প্রথমে মুরগীর মাংসে অর্ধেক পরিমাণে পেঁয়াজ, আদা, রসুন বাটা ও হলুদ মরিচ গুঁড়ো দিয়ে মাখিয়ে ২০ মিনিট রাখুন।
– এরপর প্যানে ঘি দিয়ে মুরগীর মাংস দয়ে হালকা ভাজা ভাজা করে ভেজে নামিয়ে রাখুন আলাদা করে।
– একটি প্যানে তেল দিয়ে গরম করে পেঁয়াজ কুচি দিয়ে দিন। এরপর গরম মসলা, পেঁয়াজ বাটা, আদা রসুন বাটা দিয়ে ভালো করে নেড়ে মিশিয়ে নিন। বাকি অর্ধেক মসলা দিয়ে ভালো করে কষিয়ে ভাজা মুরগীর মাংস প্যানে দিয়ে দিন।
– ভালো করে কষানো হয়ে এলে পানি দিয়ে ঢেকে দিন। মাংস প্রায় সেদ্ধ হয়ে গেলে টমেটো সস, টক দই, কাঁচা মরিচ ফালি দিয়ে ঢেকে আরও কিছুক্ষন রান্না করুন।
– ঝোল মাখা মাখা হয়ে এলে ১ টেবিল চামচ ঘি উপরে ছড়িয়ে নামিয়ে নিন।
– ব্যস, এভার গরম ভাত বা রুটির সাথে মজা নিন।