চাকরি  নামক সোনার হরিন খুঁজে বের করার আগে নিজের প্রস্তুতি একটা গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার। যুদ্ধে নামার আগে যেমন গোলাবারুদ দরকার, তেমনি চাকরি খুঁজে বের করার আগে একটা ভালো সিভি তৈরি করা খুবই জরুরি। একটা ভাল সিভি(CV বা  Lebenslauf) অনেকটা আপনার হয়েই কথা বলবে আপনারই ভবিষ্যৎ আরবাইট-গেবার (চাকরিদাতা) এর সাথে। তাই ভাল সিভির মূল্য অনেক। বেশ কিছু কথা এখানে বলা যায়, যেমনঃ ফার্স্ট ইম্প্রেশন ইজ দ্যা লাস্ট ইমপ্রেশন কিংবা “You never get a second chance to make the first impression.”  তাই মোদ্দা কথা, আপনার লেবেন্সলাউফ বা সিভি এমন হওয়া উচিত যেন তা আপনাকে যেন একটা ইন্টার্ভিউ পাইয়ে দেয়। আর ইন্টার্ভিউ পেলেই তো আপনি আপনার বাকি কারিশমা দেখাতে পারবেন! তাহলে শুরু করা যাক কীভাবে সিভি/লেবেন্সলাউফ তৈরি করবেন। 🙂

বি দ্রঃ এই আর্টিকেলটি লেখার সময় অসংখ্য ওয়েবসাইট এর সাহায্য নেয়া হয়েছে। বিভিন্ন সিনিয়র ভাইয়া/আপুদের সাথে কথা বলা হয়েছে। তাঁদের প্রতি রইল কৃতজ্ঞতা। অনিচ্ছাকৃত বানান ভুল ক্ষমা করা হবে আশা রাখি।

#অনলাইনে সিভি তৈরি করতে চাইলে এখুনি ঘুরে আসুন এই লিংক থেকে।

#সিভি/লেবেন্সলাউফ/CV/Lebenslauf (২০ টি উদাহরণ)

১, জার্মান সিভি তৈরি করতে সবচেয়ে গুরুত্বপপুর্ণ ব্যাপার হল ট্যাবুলার ফরম্যাট মেইন্টেন করতে হবে। তার মানে হল সবকিছু নির্দিষ্ট টাইমলাইনে সাজাতে হবেঃ কোন বছর এর পর কোন বছর কী করেছেন তা সাজানো! এই ব্যাপারে পরে নিচে উদাহরণ দেয়া হবে। এক ঝলক দেখে নিই কী থাকে সিভিতে?:

GLIEDERUNGSPUNKTE IM LEBENSLAUF (স্ট্রাকচার পয়েন্ট ইন সিভি)

Überschrift: Name des Bewerbers oder das Wort “Lebenslauf” (হেডলাইনঃ ক্যান্ডিডেট এর নাম বা লেবেন্সলাউফ শব্দটি)
Bewerbungsfoto (এপ্লিকেশন এর জন্য ছবি)
Persönliche Daten (Name, Anschrift, Telefon, E-Mailadresse, Geburtsdatum und -ort) (পার্সন্যাল ইনফরমেশন)
Ausbildung (Schule, Ausbildung und Studium) (লেখাপড়ার কাহিনী)
Berufserfahrung (Praktika und Jobs) (চাকরি/ইন্টার্নশিপ এর এক্সপেরিয়েন্স)
Kenntnisse (Computerkenntnisse, Sprachen) (কম্পিউটার স্কিল, বিভিন্ন ভাষার উপর দক্ষতা)
Hobbys/Engagement (শখ বা কী কাজ করতে ভাল লাগে আর!)
ggf. eine Auflistung eigener Publikationen (রিসার্চ পাব্লিকেশন সমাচার)
ggf. Auszeichnungen (বিভিন্ন পুরষ্কার এর বর্ননা)
ggf. Referenzen (রেফারেস্ন যদি থাকে)
Ort, Datum, Unterschrift (স্থান, তারিখ, স্বাক্ষর)

২, সর্বশেষ করা চাকরি/ইন্টার্নশিপ/থিসিস থেকে টাইমলাইন সাজাতে পারেন। এতে রিলেভেন্ট জিনিস বা এক্সপেরিয়েন্স আগে দেখানো সুযোগ থাকবে যা আপনার চাকরির সাথে হয়ত সম্পর্কযুক্ত।

৩, Bewerbungsfoto একটি দরকারি জিনিস। অনেক দেশে ছবি সিভিতে দেয়ার দরকার পরে না। কিন্তু ট্র্যাডিশন্যালি জার্মান সিভিতে ছবি দেয়ার দরকার আছে। তবে বাংলাদেশি স্টাইলের পাসপোর্ট ফটো না। এটা নির্দিষ্ট ধরণের ছবি যা শুধুমাত্র সিভির জন্যই তোলা হয়। যেমনঃ আখেন এর চাকরির মেলা Bonding  এ তোলা আমাদের আসিফ এর ছবিটি দেখা যায়ঃ

নিচের ওয়েবসাইটে আমরা আরো অনেক ছবি দেখতে পাব এরকমঃ http://ibewerbungsfotos.de/

তাই প্রশ্ন হতে পারে কীভাবে আমি এটা পাব/তুলবো? আর এত টাকা হলে কীভাবে তুলবো? কোন ভয় পাবেন না! 😀 আপনি বিভিন্ন চাকরির মেলাতে খুব সহজেই এবং বিনা খরচে এই ধরণের ছবি তুলতে পারবেন! আর কোথায় কোথায় এই ক্যারিয়ার মেলা হবে তা নিচে দেখে নিন! আর সেই অনুযায়ী প্রস্তুতি নিন! লিংকঃ http://www.bonding.de/messe/aachen.nsf/web/studenten_bewerbungsfotos_de

৪, ম্যাক্সিমাম দুই পেইজ হবে আপনার সিভি। এর বেশি তে যাওয়া উচিত না কিছুতেই। এইটা তৃতীয় পেইজ যোগ করতে পারেন যদি আপনার রিসার্চ পাব্লিকেশন এর ব্যাপারে লিখতে চান।

৫, সিভির শেষে আপনার সিগনেচার দিতে পারেন।

৬, সময় লেখার সময় মাস এবং বছর উল্লেখ করবেন। শুধু Summer 2014 না লিখে লিখুন 04/2014 to 09/2014 ইত্যাদি। নিচের ছবিটিতে ভুল সিভির উদাহরণ আছে।

 

৭, সিভিতে যা যা করবেন নাঃ

  • বেশি কালারফুল সিভি করবেন না। মনে রাখবেন এটা প্রফেশন্যাল ফিল্ড।
  • চাকরি অনুযায়ী কাস্টমাইজড সিভি করবেন। সব প্রজেক্ট কাজ এক সিভিতে দেয়া ঠিক নয়। শুধুমাত্র স্পেসিফিক চাকরির জন্য রিলেভেন্ট প্রজেক্ট/একপেরিয়েন্স সিভিতে থাকা উচিত।
  • বিভিন্ন প্রজেক্টে শুধু নাম দিয়ে চলে যাবেন না। প্রতি প্রজেক্টে আপনার কাজ এবং রেস্পনিবিলিটি কী কী ছিল তা বুলেট পয়েন্ট আকারে দিতে হবে।
  • আপনি কী কী ল্যাংগুয়েজ জানেন তা সাধারণভাবে না লিখে Language Proficiency in European Scale এ দেয়া উচিত। যেমনঃ

  • লেখার ফন্ট বিশাল হওয়া যাবে না। Arial বা Times New Roman এর সাইজ 11-12 হলে ভাল হবে!
  • EDV-Kenntnisse (কম্পিউটার সম্পর্কিত স্কিল) লেখার সময় MS Word/Excel ইত্যাদি শুরুতেই লিখবেন না। প্রথমে আপনার প্রফেশন্যাল কাজের সাথে সম্পর্কিত সফটওয়্যার এর কথা আগে লিখবেন। যেমনঃ Matlab, C++ ইত্যাদি।
  • টাইমলাইন ধরে সবকিছু লিখতে হবে ঠিক আছে, কিন্তু তাই বলে প্রাইমারি স্কুলের কাহিনী বিশাল করে লেখার কিছু নাই!
  • সিভির টাইমলাইনে কক্ষনই ৩ মাসের বেশি টাইমগ্যাপ থাকতে পারবে না। এর চেয়ে বেশি গ্যাপ থাকলে অবশ্যই পালটা প্রশ্ন আসবে এই ব্যাপারে নিশ্চিত থাকুন!
  • শখ বা ইন্টারেস্ট এর ব্যাপারে লেখার সময় খেয়াল রাখুন তা যেন আপনার বিশেষ কোন গুণ বা কমিটমেন্ট প্রকাশ করে। যেমনঃ কোন ক্লাবের মেম্বার হওয়া বা কাজ করা। শুধু যদি লিখেন পড়তে ভালবাসি তাহলে তা খুব কমই ইমপ্যাক্ট ফেলে যিনি সিভিটি পড়ছেন তাঁর উপর।
  • ধর্ম বা রাজনৈতিক পরিচয় এর দরকার নেই।
  • এমন কোন ইমেল এড্রেস ব্যবহার করবেন না যা বিরক্তিকর বা ফাইজলামি টাইপ। যেমনঃ [email protected] বা [email protected] ইত্যাদি!

৮, এইতো! তাইলে এক্ষুনি লিখে ফেলুন আপনারা আপনাদের সিভি! যেকোন সমস্যা বা প্রশ্নে আমরা তো আছিই! সকলের চাকরি খোঁজ দ্যা সার্চ শুভ হোক! ধন্যবাদ।

#অনলাইনে সিভি তৈরি করতে চাইলে এখুনি ঘুরে আসুন এই লিংক থেকে।

#সিভি/লেবেন্সলাউফ/CV/Lebenslauf (২০ টি উদাহরণ)

নিচে বিভিন্ন স্থান-কাল-পাত্র থেকে খুঁজে খুঁজে বের করা গুরুত্বপূর্ণ ইউটিউব ভিডিওগুলো দেয়া হল। চ্যালেঞ্জ করে বলা যায় জার্মান সিভি নিয়ে করা বেস্ট অব দ্যা বেস্ট ভিডিও হল এগুলো। খুঁজে বের করতে আমার দিনের পর দিন লাগলেও, আশা করি এগুলো দেখে অনেক কিছু শিখতে পারবেন। ধন্যবাদ।

ক, Lebenslauf – Beispiel für das Erstellen eines einfachen Lebenslaufes

খ, Erstelle einen professionellen Lebenslauf

গ, Professionell bewerben – Ihr Curriculum Vitae (Lebenslauf) in schriftlicher Form

ঘ, Bewerbungstipps Video | Der Lebenslauf |

ঙ, Lebenslauf rückwärts chronologisch Anleitung

চ, Der Lebenslauf – ein Blatt Papier das über deine Zukunft entscheidet

ছ, Lebenslauf erstellen

জ, Bewerbunghelfer Richtig Bewerben Teil 1 Der Lebenslauf richtig schreiben

ঝ, Foto im Lebenslauf einfügen

ঞ, Lebenslauf/ Vita schreiben, verbessern