চাকরি এবং জার্মানি – পর্ব – 00 – এপ্লিকেশন প্রিপারেশন (১০টি টিপস)

চাকরির জন্য কাভার লেটার – চাকরি এবং জার্মানি – পর্ব – ০১

১, জার্মানিতে চাকরি খুঁজছেন? লেখাপড়া শেষ করার আগে থেকেই শুরু করে দিতে হবে এই কাহিনী! মনে করেন থিসিস এর মাঝামাঝি অবস্থায় আসার আগেই সিভি/লেবেন্সলাউফ, কাভার-লেটার/আনশ্রাইবেন, সার্টিফিকেট এর পিডিএফ, ইন্টার্নশিপ/প্রাকটিকুম ইত্যাদি তৈরি রাখতে হবে। যাতে চাহিবা মাত্র পাঠিয়ে দিতে পারেন। সবকিছু অবশ্যই জার্মান/ডয়েচ ভাষায় হওয়া চাই।

২, এপ্লাই করেই সাথে সাথে পজিটিভ/নেগেটিভ রিপ্লাই এর আশা করবেন না? আশা হল মরীচিকা! আবার আশা-ই হল একমাত্র ভেলা! এপ্লাই করার পর সাধারণত একটা কনফার্মেশন পাবেন যে তাঁরা আপনার এপ্লিকেশন পেয়েছেন। এটা অনেকসময় অটোমেটিক রিপ্লাই হয়ে থাকে। ২/৩ সপ্তাহ পরে একটি রিপ্লাই পাবার আশা করতে পারেন।

৩, যদি আপনাকে কোম্পানির ওয়েবসাইটে গিয়ে এপ্লাই করতে হয় তাইলেই হইছে! এধরনের এপ্লিকেশন এর জন্য প্রচুর সময় লাগে! ফর্ম ফিল আপ করতে করতে মাথা খারাপ এর মত অবস্থা! আর কিছু এপ্লিকেশন ইমেল করলেই চলে। এখানে বেশিক্ষন সময় লাগে না। তাই দেখে-শুনে-বুঝে এপ্লাই করতে হবে। তবে টপাটপ এপ্লিকেশন এর চেয়ে প্রতিটা চাকরির রিকোয়ারমেন্টস অনুযায়ী কাস্টমাইজড এপ্লিকেশন বেশ কার্যকরী। আমি অন্তত ১০ থেকে ১২ জন সুপার সিনিয়র ভাই/আপুর সাথে কথা বলে এই পরামর্শ দিচ্ছি। 🙂

Sams Ul Arefin Rashidul প্রয়োজনীয় একটা বিষয়ে লেখার জন্য ধন্যবাদ | আমি তোমার সাথে একটা বিষয় যোগ করতে চাচ্ছি – অনেক সময় দেখা যায় সময় বাচাতে অনেকেই একই সিভি ও কভার লেটার ব্যবহার করে অনেকগুলো এপ্লিকেশন করে থাকে, এটা আসলে রিজেক্ট হবার সব চেয়ে বড় কারণ | যারা প্রতিনিয়ত চাকরীর এপ্লিকেশন নিয়ে কাজ করে, তারা সিভি খোলার সাথে সাথেই প্যাটার্ন ধরতে পারে | তাই আমি পরামর্শ দিব এপ্লিকেশন সংখা নয়, বরং গুনগত মানের দিকটা আগে ভাবতে হবে | প্রয়োজনে একদিনে ২-৩ টির বেশি এপ্লিকেশন করার প্রয়োজন নেই | আমি অনেকের কাছেই শুনেছি কারো কারো নাকি ১০০০-১২০০ এপ্লিকেশন করতে হয়েছে প্রথম চাকরি পাবার ক্ষেত্রে, যার মাজে ১০-১৫ বার ও ইন্টারভিউ কল আসেনি , এক্ষেত্রে আমি বলব এপ্লিকেশন সঠিক উপায়ে করা হয়নি | ইন্টারভিউ কল আসার অর্থ হচ্ছে এপ্লিকেশন প্রক্রিয়া সঠিক আছে , ভাগ্য সুপ্রসস্ন হলেই হয়ে যাবে।

৪, কী ধরনের রিপ্লাই পাব? সাধারণত দু’ধরনের। ক, টেলিফোন ইন্টার্ভিউ বা ১ম পার্সনাল ইন্টার্ভিউ কিংবা খ, রিজেকশন বা দুঃখ প্রকাশ করে টা টা দেয়া! নিচে কোন রিপ্লাই এর ধরণ কী রকম তা দেয়া হলঃ

ক, টেলিফোন ইন্টার্ভিউ বা ১ম পার্সনাল ইন্টার্ভিউঃ-

এই ইন্টার্ভিউ যদি পান তবে ৯৫% ক্ষেত্রে তাঁরা আগে আপনাকে ফোন করবে। ফোন করে আপনাকে টেয়ারমিন/এপয়েন্টমেন্ট এর সময় নিয়ে প্রশ্ন করবে। মনে রাখবেন আপনার ট্র্যাভেল খরচ সবসময়ই তাঁরা আপনাকে রিফান্ড করবে। কিন্তু এরপরও এই ব্যাপারে আগে থেকে ক্লিয়ার-কাট কথা বলে নেয়া ভাল। আপনি রাজি হলে ইমেল করে কনফার্ম করবেন তাঁরা এইভাবেঃ

Sehr geehrter Herr Hasan,

wie bereits telefonisch besprochen, freuen wir uns darauf, Sie zu einem Vorstellungsgespräch einzuladen:
Termin: Mittwoch, 04.06.2014 um 16:00 Uhr

Gesprächspartner: Herr xxx (Design Engineer)
Frau xxx (Human Resources)

Eine Wegbeschreibung und nähere Informationen finden Sie unter xxx sowie im Anhang.

In diesem Zusammenhang möchten wir Sie darauf aufmerksam machen, dass wir die Fahrtkosten mit Nachweis und auf Basis einer Bahnfahrt 2. Klasse (Bundesgebiet), sowie die Fahrtkosten der öffentlichen Verkehrsmittel ersetzen. Bitte schicken Sie uns dazu nach dem Gesprächstermin Ihre Fahrtkostenbelege zusammen unter Angabe Ihrer Bankverbindung zu. Der Ersatz einer Übernachtungs- und Verpflegungspauschale ist ausgeschlossen.
Vielen Dank für Ihre Terminbestätigung und freundliche Grüße,

xxx
Human Resources

Direct phone xxx

খ, রিজেকশন বা দুঃখ প্রকাশ করে টা টা দেয়াঃ-

এত কষ্ট করে করা এপ্লিকেশন এর রিজেকশন দেখতে পাওয়া খুবই দুঃখের। কিন্তু মনে রাখবেন শুরুর দিকে এটাই হবে আপনার ডেইলি রুটিন। আমি এক্সট্রা অর্ডিনারি কোন উদাহরণ দিব না। কারণ একসেপশন কখনই একযাম্পল হতে পারে না। তবে আমার হিসাব বলে একটা চাকরি পাওয়ার জন্য আপনার কমপক্ষে ৩০০ থেকে ৪০০ এপ্লিকেশন করা উচিত। আর এক্সপেক্ট করা উচিত প্রতি ২৫ টা এপ্লিকেশন এর পরে একটা করে ইন্টার্ভিউ পাবেন। তাহলে দেখবেন মন অনেক ভাল থাকবে। ফ্রাসস্টেশন পার করতে পারবেন। এই সময়টা বেশ কঠিন। মনবল হারাবেন না। তবে যারা একটা এপ্লিকেশন করে একটাতেই চাকরি পেয়ে যান/যাবেন তাদের সালাম, সালাম… হাজার সালাম! 🙂

একটি রিজেকশন ইমেলঃ-

Sehr geehrter Herr Hasan,

herzlichen Dank für Ihre Bewerbung und Ihr Interesse an unserem Unternehmen.

Wir haben Ihre Unterlagen sorgfältig geprüft und dabei auch in Frage kommende Fachabteilungen unseres Hauses eingebunden. Dennoch können wir Ihnen heute leider keine positive Nachricht zukommen lassen, da Ihre Bewerbung im Rahmen der Stellenbesetzungen nicht berücksichtigt werden kann.

Wir wünschen Ihnen für Ihre weitere berufliche Entwicklung viel Erfolg und alles Gute.
Mit freundlichen Grüßen

xxx GmbH

xxx xxx

—————————————————–
mailto: [email protected]
tel xxx
—————————————————–

পরবর্তী লেখায় ইন্টার্ভিউর প্রশ্নোত্তর নিয়ে আলোচনা করার আশা রইল। আমার এই লেখাগুলো অবশ্যই আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতার আলোকে লেখা। কারো দ্বিমত থাকলে তা জানানোর স্বাদর আমন্ত্রণ রইল। ধন্যবাদ।

পরের পর্ব

ফ্রেশ গ্র্যাজুয়েটদের বেতন কত বা কোন অঞ্চলে চাকরি বেশি? – চাকরি এবং জার্মানি – পর্ব – ৪

ট্যাক্স(Income Tax) হিসাব করা – চাকরি এবং জার্মানি – পর্ব – ৫