পীযূষ কুরী

September 18 at 11:30 AM · 

২.৬৮ সিজিপিএ ও জার্মান ভিসা পাওয়ার কাহিনী 🙂

শুরুতেই সিজিপিএ ম্যানশন করার কারন হচ্ছে, অনেকেই হতাশ থাকে ব্যাচেলর এর লো সিজিপিএ নিয়ে। আমি নিজেও ছিলাম, কিন্তু এই দীর্ঘ জার্নি তে এটাকে ই কারন বানিয়েছি। তো আমার সাজেশন থাকবে, রেজাল্ট নিয়ে হতাশ হবেন না, সাধ্যের ভিতর চেষ্টা করুন, ভগবান হতাশ করবে না আশা করি। হ্যাঁ, পরিশ্রম একটু বেশি ই, কিন্তু যে ভূল টা ব্যাচেলর এ করে এসেছেন, সেটার পরেও স্বপ্ন দেখা,সত্যি করা, অনেক । 🙂

Ielts score : 6 ( L-6, R-6, W-6.5, S-6)

Going to: university of kassel

Subject : Economic behaviour and governance.

Apply via uni-assist
send papers : 5 May
uni-assist forwarded :20th June

offer letter received : 2nd July

Visa interview : 20th August

Email received : 17th september

Visa received : 18th September

University of Hohenheim থেকেও অফার লেটার আসছিলো। টিউশন ফি থাকার কারনে যাই নি আর। লো সিজিপিএ এর কারনে কানাডা তে ও এপ্লাই করসিলাম,সেখান থেকেও অফার লেটার আসছিলো, কিন্তু টিউশন ফি আর পরিচিত তেমন কেউ না থাকার কারনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেই নি।

অনেক গুলা রাত বিনিদ্র কেটেছে, কিছু মানুষ জন অনেক বেশিই সাহায্য করেছে,তাদের অবদানেই এতটুকু পথ পাড়ি দেওয়া,তাদের কাছে ঋণী।

—————————————————————————————————————-

—————————————————————————————————————-

Fahimul Daud Linkon

July 30 · tag Visa Interview2 others#VISA_INTERVIEW#VISA_EXPERIENCE

আলহামদুলিল্লাহ্‌, ভিসা হাতে পেয়েছি!

১০ বছর বয়স থেকে জার্মান ফুটবলের আর বায়ার্ন মিউনিখের প্রেমে পড়ে জার্মানি যাওয়ার স্বপ্ন দেখেছি। গতকাল সেই স্বপ্ন পূরণের পথে অধিকাংশটায়ই এগিয়ে গিয়েছি। আজ আমার ভিসা অভিজ্ঞতাটা আপনাদের কাছে শেয়ার করছি।
প্রোফাইলঃB.Sc in Civil Engineering CGPA: 3.35IELTS: 6.5Job Experience: 1 Year (Research Assistant – Water Management)

ভবিষ্যৎ বিশ্ববিদ্যালয়ঃName: TU Dresden
Subject: M.Sc in Hydro Science and Engineering
আবেদনকৃত অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ঃUniversität Stuttgart (M.Sc in Water Resources Engineering & Management, Got Accepted on 11-03-2019)

আবেদনের টাইমলাইনঃভার্সিটিতে আবেদনঃ ১৫-০২-২০১৯ (UNI STUTTGART)
অফার লেটার প্রাপ্তিঃ ১১-০৩-২০১৯ (UNI STUTTGART)
ব্যাঙ্কে স্টুডেন্ট ফাইল ওপেনঃ ১২-০৩-২০১৯
ব্লক একাউন্ট ওপেনঃ ১৪-০৩-২০১৯
ব্লক একাউন্ট ওপেন কনফার্মেশনঃ ১৬-০৩-২০১৯
ভার্সিটিতে আবেদনঃ ১৫-০৫-২০১৯ (TU DRESDEN)
ইউনি এসিস্টে এসেসমেন্ট ফি প্রদানঃ ১৮-০৫-২০১৯
আবেদনের ডেডলাইনঃ ৩০-০৫-২০১৯
আবেদন মূল্যায়ন শুরুঃ ০৬-০৬-২০১৯
অফার লেটার প্রাপ্তিঃ ২১-০৬-২০১৯ (TU DRESDEN)
ভিসা ইন্টারভিউ এর স্লট বুকিংঃ ০১-০৭-২০১৯
ভিসা ইন্টারভিউঃ ০৩-০৭-২০১৯ (TU DRESDEN এর অফার লেটার দিয়ে)
ব্লকের টাকা ট্রান্সফারঃ ২৪-০৭-২০১৯
ব্লক কনফার্মেশন প্রাপ্তিঃ ২৬-০৭-২০১৯
ব্লক কনফার্মেশন এম্বাসিতে জমাঃ ২৮-০৭-২০১৯
পাসপোর্ট কালেকশন ই-মেইলঃ ২৯-০৭-২০১৯ (সকাল ৮ টা ৩৮ মিনিট)
পাসপোর্ট কালেকশনঃ ২৯-০৭-২০১৯

ইন্টারভিউ এর কথোপকথনঃMe: Hello, Sir. (didn’t even answer)VO: So Linkon, Do have any extra photo? (I submitted two photos first when they took documents).Me: Yes, sir. I have (gave another photo).VO: What’s your plan on accommodation?Me: Sir, I have applied for student accommodation. The result is supposed to be out at the end this month.(I didn’t book any hotel and he didn’t even ask me about that.) VO: When was your HSC completed?Me: (told)VO: result?Me: (told)VO: When was your Bachelor completed?Me: (told)VO: result?Me: (told)VO: Which university and which subject?Me: (told)(Then he asked for application fee and fingerprints)VO: What’s the name of your university in Germany?Me: (told)VO: How many semesters do your program have?Me: (told)VO: Who is your sponsor?Me: (told)VO: Why do you want to study in Germany in particular?Me: (told)VO: Have you applied in any other university?Me: (told)VO: ok, here is your receipt.Me: Is there any other things needed?VO: No.Me: Thank you.
ইন্টারভিউয়ে গিয়ে ভয় পাওয়ার কিছু নাই। যেটা সত্য সেটা ১-২ লাইনের মধ্যে বলে দিন। আর ব্লকিং কনফার্মেশনের জন্য অপেক্ষা করবেন না, যত তাড়াতাড়ি পারেন আগে ইন্টারভিউ দিয়ে আসেন। তবে টাকার সমস্যা না থাকলে ইন্টারভিউ এর সময়ই এটা দিয়ে দেওয়া ভাল।

অনেকের আরেকটা ভুল ধারণা আছে যে, ব্লকিং কনফার্মেশন জমা দেওয়ার পরই ভিসা প্রসেসিং শুরু হয়, তার আগে না। কিন্তু সত্যটা হচ্ছে, ব্লকিং কনফার্মেশন জমা না হলেও জার্মানিতে সব কাগজপত্র পাঠিয়ে দেওয়া হয় এবং ভিসার সিদ্ধান্ত চলে আসে। কিন্তু এম্বাসিতে ভিসা ইস্যুর সময় চূড়ান্ত এবং অনিবার্য রিকুয়ারমেন্ট হচ্ছে ব্লকিং কনফার্মেশন!
ইউনি স্টুটগার্টের অফার পাওয়ার পর আমি ৪ বার এপইন্টমেন্ট ডেট নিসিলাম!!! কিন্তু পারিবারিক সমস্যার কারণে আমি কোন বারই ইন্টারভিউ এর জন্য যাইতে পারি নাই। প্রতিবারই ৪-৫ দিন অথবা ১ সপ্তাহ আগে আমি ক্যান্সেল করে দিয়ে নতুন ডেট নিসি। ইউনি স্টুটগার্টে টিউশন দিয়ে পড়া আমার পক্ষে কোন ভাবেই সম্ভব ছিল না। তাই সব শেষে এসে টিইউ ড্রেসড্রেনে এপ্লাই করি এবং আল্লাহ্‌র রহমতে সবশেষে এসে এখানেই পড়াশুনা করার সুযোগ হয়। তাই যে কোন পরিস্থিতিতে আগে নিজের উপর বিশ্বাস রাখুন, এটাই আপনাকে ভাল কিছু দিবে ইনশাআল্লাহ্‌ !

সবশেষে, সবার শুভ কামনা করছি। সবার মনের সৎ ইচ্ছা আল্লাহ্‌ পূরণ করুক।