ভ্রমণ পছন্দ নয় এমন মানুষ পাওয়া নিঃসন্দেহে দুষ্কর। ইউরোপে যাঁরা থাকে তাঁদের জন্য বিনা ভিসায় প্রতিবেশী নানা দেশে ঘুরে বেড়ানোর মজা যেন একটু আলাদাই। ভ্রমণ পিপাসুদের সুবিধার কথা চিন্তা করেই আমাদের এবারের ম্যাগাজিন ভ্রমণ বা ট্রাভেলিং নিয়ে। 

ঘরকুনো বাঙ্গালি হিসেবে আমাদের দুর্নাম আছে বটে কিন্তু এই সংখ্যার লেখাগুলো পড়লে সেই তকমার অবসান হতে পারে। পুরো ইউরোপ জুড়ে সহজে কম খরচায় ভ্রমণের পথ বাতলে দিয়েছেন মুনশী আরিফ রশীদ। সুদূর যুক্তরাষ্ট থেকে ডঃ নিশি লিখেছেন কোস্টারিকা ভ্রমণ নিয়ে সুপাঠ্য রচনা, দুবাই থেকে গৃহবধূ মনিরা সুলতানা লিখেছেন তাঁর অনুভূতি। আছে ডঃ রিমের কবিতাসৈনিকের দুঃস্বপ্নএবং মিউনিখের বিখ্যাত অক্টোবর ফেস্টের আদ্যপান্ত নিয়ে হোসাইন মুহাম্মদ তালিবুল ইসলামের তথ্যবহু প্রবন্ধ। 

ভ্রমণ যাঁদের স্বপ্ন তাঁদের জন্য এবারের সংখ্যা শুধু উপাদেয়ই নয়, তথ্যের খনিও বটে। আশাকরি বরাবরের মতই আপনারা আপনাদের ভালবাসা, উদ্যম নিয়ে আমাদের ম্যাগাজিনের সাথেই থাকবেন আর ম্যাগাজিন পড়েই ঘুরতে বেরিয়ে যাবেন। কারণ, মার্ক টোয়েন বলে গেছেনবিশ বছর আগে যা তুমি করেছ তার থেকে যা তুমি করনি তা নিয়েই তুমি বেশি হতাশ হবে।

ম্যাগাজিন ডাউনলোড/দেখতে ক্লিক করুন

(প্রায় ৭.৪ মেগাবাইট)

ধন্যবাদান্তে
টিম জার্মান প্রবাসে
রোববার, ২৫ নভেম্ববর ২০১৮, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

 

 

অনিচ্ছাকৃত বানানভুল ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখার আবেদন রইল।

চাইলে আপনিও লেখা/ছবি পাঠাতে পারেন!

***“পাঠশালা” নিয়ে  লিখুন জার্মান প্রবাসের পরবর্তী সংখ্যায়***

পরবর্তী সংখ্যার ম্যাগাজিনের থিম: “পাঠশালা”

জীবনের বহু কিছু সময়ের ফেরে মহাকালের অতলে হারিয়ে গেলেও কিছু কিছু ব্যাপার চিরকালের জন্যে হৃদয়ে গেঁথে রয়। শৈশব কৈশরের পাঠশালার গল্পগুলো তেমন, কখনোই মন থেকে মুছে যায় না। সকালে উঠে চটপট রেডি হওয়া, মাথায় চপচপ তেল মেখে বাবু সেজে বন্ধুদের সাথে হেঁটে বা কখনো খাল বিল নদী পার হয়ে স্কুলে যাওয়া, ক্লাশে বসে দুষ্টামি, হাইস্কুলে উঠে প্রেমে পড়া, স্যারের হাতে বেতের বারি সেকালে যন্ত্রণার হলেও আজ নিশ্চয়ই মনে হলে হাসি পায়।

প্রাইমারীর পর হাইস্কুল, এরপর কলেজ আর তারপর বিশ্ববিদ্যালয়। সবখানেই আমাদের মধুর সব স্মৃতি। সেই স্মৃতি রোমন্থন করেই যেন আমরা বাঁচি।

মনের গভীরে সযত্নে লুকিয়ে রাখা সুখ দুঃখ আর মধুর গল্পগুলো লিখে পাঠান জার্মান প্রবাসের কাছে। আমরা ম্যাগাজিন আকারে আপনার লেখা প্রকাশ করে সবার সাথে সেই স্মৃতি ভাগাভাগি করে নিব। 

ডেডলাইনঃ ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮

লেখা পাঠানঃ [email protected]

অথবা পেজের ইনবক্সে পাঠানঃ www.facebook.com/pages/জার্মান-প্রবাসে/212610425614429

ছবির পাঠানোর জন্য বিস্তারিতঃ http://goo.gl/90IVlk

লেখা পাঠানঃ [email protected]
অথবা পেজের ইনবক্সে পাঠানঃ www.facebook.com/pages/জার্মান-প্রবাসে/212610425614429
ছবির পাঠানোর জন্য বিস্তারিতঃ http://goo.gl/90IVlk

লেখার সাথে নাম ঠিকানা পেশা আর একটি ছবি অবশ্যই পাঠাবেন।

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ শুধু জার্মানি বা বাংলাদেশ থেকেই নয়, যেকোন দেশের প্রবাসী বাংলাদেশিদের সাদর আমন্ত্রণ আমাদের ম্যাগাজিনে! তাই আমাদের ম্যাগাজিনে লিখতে হলে আপনাকে বাংলাদেশ বা জার্মানিতেই থাকতে হবে এমন কোন কথা নেই!


জার্মান প্রবাসে আড্ডা দিতে চাইলেঃ www.facebook.com/groups/BSAAG/ (বিশ্বস্ততার সাথে ৬৯ ,০০০+ সদস্য নিয়ে)


ম্যাগাজিন ডাউনলোড/দেখতে ক্লিক করুন

(প্রায় ৭.৪ মেগাবাইট)


অনলাইনে পড়তে চাইলেঃ