নিয়মিত প্রকাশনার মাঝে আমাদের জার্মান প্রবাসে ম্যাগাজিনটি প্রকাশে ব্যত্যয় ঘটে নানাকারণে। বিদেশে যারা থাকেন তাঁদের নিশ্চয়ই সেটি বিস্তারিত বলার প্রয়োজন নেই। পড়ালেখা, চাকরি বাকরি, এছাড়াও নানাবিধ প্রয়োজনে আমাদের সবাইকে ব্যস্ত থাকতে হয়। তবু এতদিন বাদে আবারো ম্যাগাজিনটি নিয়ে হাজির হতে পারায় আমরা যারপরনাই আনন্দিত।

এবারে আমাদের আনন্দের দ্বিতীয় কারণ বলি। মিউনিখের ডঃ রিম সাবরিনা জাহান সরকার মাস হতে আমাদের ম্যাগাজিনে একজন সেচ্ছাসেবী কোএডিটর হিসেবে জয়েন করেছেন। তাঁকে আমাদের পক্ষ হতে অভিনন্দন। বেশ কমাস বন্ধ থাকার পরে এবারের এই সংখ্যায় লেখাগুলোর লেখকদের জানাই আন্তরিক ধন্যবাদ।  ডঃ রিমের ভ্রমণ কাহিনি এবারের প্রচ্ছদ। এইজিয়ান সাগরে জেগে থাকা গ্রীক দ্বীপ সান্তরিনিতে ভ্রমণের ইচ্ছে থাকলে এই লেখাটি আপনার প্রয়োজন মেটাবে। ইয়েনা থেকে মিজু আলম লিখেছেন বাংলাদেশে সৌরবিদ্যুতের অপার সম্ভাবনা নিয়ে একটি বিজ্ঞানরচনা। হ্যানোভারে রাকিবুল ইসলাম সিতাব লিখেছেন দেশ ছেড়ে আসার কষ্ট জার্মানিতে প্রথম দিনগুলোর কথা। ব্রেমেন থেকে আরিফ মাহমুদ সুলতান লিখেছেন তার বড় বোনকে নিয়ে হাস্যরসে ভরপুর মজার কিছু স্মৃতি।

ম্যাগাজিন ডাউনলোড/দেখতে ক্লিক করুন

(প্রায় ৩.৩ মেগাবাইট)

সব মিলিয়ে সবকটি লেখা নিঃসন্দেহে সুলিখিত এবং পড়ে পাঠকের ভাল লাগবে একথা নিশ্চিত বলা যায়। আর পাঠক, মানে আপনাদের ভাল লাগাই আমাদের নিকট একমাত্র অগ্রাধিকার।

ধন্যবাদান্তে
টিম জার্মান প্রবাসে
রোববার, ১৪ অক্টোবর ২০১৮, ২৯ আশ্বিন ১৪২৫

 

অনিচ্ছাকৃত বানানভুল ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখার আবেদন রইল।

চাইলে আপনিও লেখা/ছবি পাঠাতে পারেন!

***“ভ্রমণ” “পাঠশালা” নিয়ে  লিখুন জার্মান প্রবাসের পরবর্তী দুটি সংখ্যায়***

লেখার বিষয় ১-  “ভ্রমণ”– কীভাবে? কখন? কোথায়?

দেশের বাইরে পড়ছেন কিংবা চাকরি করছেন এররকম অনেকের স্বপ্নই থাকে ইউরো-ট্রিপের কিংবা আরেকটু বড় করে বললে বিশ্ব-ভ্রমণের। এছাড়া গ্রীষ্মকাল কেবল শেষ হল, নিশ্চয়ই অনেকের ঘোরাঘুরির কমতি হয়নি।

প্রচুর শিক্ষার্থী সেমিস্টার ব্রেকে প্যারিস, লিসবন, বার্সেলোনা, প্রাগ, আর্মস্টারডাম, লন্ডন, ব্রাসেলস ইত্যাদি শহর কিংবা বিভিন্ন দেশের দর্শনীয় সব জায়গা ঘুরে দেখেছেন ইতিমধ্যে! কিংবা জার্মানির ভেতরেও ঘুরে দেখার মত জায়গা রয়েছে প্রচুর। তাই যেকোন জায়গায় ভ্রমণ নিয়ে ঝটপট লিখে ফেলুন এবারের সংখ্যায়।

যে পয়েন্টগুলো যোগ করতে ভুলবেন না তা হলঃ

১, কেন ঐ জায়গা বা শহরে যেতে ইচ্ছে হল? (ঐতিহাসিক কারণ বা মনোমুগ্ধকর জায়গা ভ্রমণ ইত্যাদি)

২, কীভাবে গেলেন তার প্ল্যানিং (বাস, ট্রেন, প্লেন ইত্যাদি। এই জায়গায় আমরা একটু জোর দিতে বলব, কারণ যাঁরা ভ্রমনবিলাসী তাঁরা জানেন একটু কৌশলী হলে কত ইউরো বাঁচানো যায়!)

৩, ঐ জায়গায় থাকার ব্যবস্থা (যদি থেকে থাকেন)

৪, খাবার ব্যবস্থা (কোথায় খাওয়া উচিত বা সাথে করে কী স্ন্যাক্স নিয়ে যাওয়া উচিত)

৫, ছবি! ছবি!! ছবি!!! (আপনার ভ্রমনের প্রচুর ছবি আমরা আর্টিকেলে দেখতে এবং দিতে চাই। তাই অবশ্যই ছবি দিবেন।)

৬, সবশেষে আর যা কিছু আপনি যোগ করতে চান। (আপনার সম্পূর্ণ সৃজনশীলতা এখানে ব্যবহার করতে পারেন।)

ডেডলাইনঃ ১০ নভেম্বর ২০১৮

লেখার বিষয় ২- “পাঠশালা”

জীবনের বহু কিছু সময়ের ফেরে মহাকালের অতলে হারিয়ে গেলেও কিছু কিছু ব্যাপার চিরকালের জন্যে হৃদয়ে গেঁথে রয়। শৈশব কৈশরের পাঠশালার গল্পগুলো তেমন, কখনোই মন থেকে মুছে যায় না। সকালে উঠে চটপট রেডি হওয়া, মাথায় চপচপ তেল মেখে বাবু সেজে বন্ধুদের সাথে হেঁটে বা কখনো খাল বিল নদী পার হয়ে স্কুলে যাওয়া, ক্লাশে বসে দুষ্টামি, হাইস্কুলে উঠে প্রেমে পড়া, স্যারের হাতে বেতের বারি সেকালে যন্ত্রণার হলেও আজ নিশ্চয়ই মনে হলে হাসি পায়।

প্রাইমারীর পর হাইস্কুল, এরপর কলেজ আর তারপর বিশ্ববিদ্যালয়। সবখানেই আমাদের মধুর সব স্মৃতি। সেই স্মৃতি রোমন্থন করেই যেন আমরা বাঁচি।

মনের গভীরে সযত্নে লুকিয়ে রাখা সুখ দুঃখ আর মধুর গল্পগুলো লিখে পাঠান জার্মান প্রবাসের কাছে। আমরা ম্যাগাজিন আকারে আপনার লেখা প্রকাশ করে সবার সাথে সেই স্মৃতি ভাগাভাগি করে নিব। 

যেকোন দেশের প্রবাসী বাংলাদেশিদের সাদর আমন্ত্রণ আমাদের ম্যাগাজিনে! তাই আমাদের ম্যাগাজিনে লিখতে হলে আপনাকে বাংলাদেশ বা জার্মানিতেই থাকতে হবে এমন কোন কথা নেই!

ডেডলাইনঃ ১০ ডিসেম্বর ২০১৮

 

লেখা পাঠানঃ [email protected]
অথবা পেজের ইনবক্সে পাঠানঃ www.facebook.com/pages/জার্মান-প্রবাসে/212610425614429
ছবির পাঠানোর জন্য বিস্তারিতঃ http://goo.gl/90IVlk

লেখার সাথে নাম ঠিকানা পেশা আর একটি ছবি অবশ্যই পাঠাবেন।

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ শুধু জার্মানি বা বাংলাদেশ থেকেই নয়, যেকোন দেশের প্রবাসী বাংলাদেশিদের সাদর আমন্ত্রণ আমাদের ম্যাগাজিনে! তাই আমাদের ম্যাগাজিনে লিখতে হলে আপনাকে বাংলাদেশ বা জার্মানিতেই থাকতে হবে এমন কোন কথা নেই!


জার্মান প্রবাসে আড্ডা দিতে চাইলেঃ www.facebook.com/groups/BSAAG/ (বিশ্বস্ততার সাথে ৬৭,৫০০+ সদস্য নিয়ে)


ম্যাগাজিন ডাউনলোড/দেখতে ক্লিক করুন

(প্রায় ৩.৩ মেগাবাইট)