Rishikesh Bhowmick

Conversation Starter · February 12 at 9:22 PM

আমার স্ত্রী আজকে ভিসা ইন্টারভিউ দিয়ে এসেছে। স্পাউস ভিসা ইন্টারভিউ এর অভিজ্ঞতা অনেকের উপকারে আসতে পারে এবং এই ভিসায় নানা কনফিউশান থাকায় আমার স্ত্রী কে বলেছিলাম তার অভিজ্ঞতা যেন লিখে রাখে। সে লিখে দিয়েছে আমি সেটা হুবুহু তুলে দিলাম।

#স্পাউস / #ফ্যামিলিরিইউনিয়ন #ভিসা ঃ

ইন্টারভিউ ডেট নেবার পরেই প্রথম কাজ হোলো ডেট কনফার্মেশন এর মেইল এর একটা প্রিন্ট কপি নেয়া৷ ইন্টারভিউ এর দিনে সেটা দেখানো লাগতে পারে। আমি করেছিলাম কিন্তু আমার কাছে দেখতে চায় নি। আপনি ব্যাগ নিয়ে ঢুকতে পারবেন। শুধু মোবাইল, পেন্ড্রাইভ, হেডফোন রেখে যেতে হবে লকারে। এরপর ওয়েটিং রুমে বসে চেকলিস্ট অনুযায়ী সব ডকুমেন্টস গুছিয়ে ফেলুন। ওয়েবসাইট এর মতই চেকলিস্ট তবুও আমি সবার সুবিধার জন্য চেকলিস্ট সাথে এনেছি লাগ্লে ছবি তুলে আপলোড করে দেবো৷ জানি না কেনো আজকে ৯০% লোক ভেতরে ঢুকে এই চেকলিস্ট অনুযায়ী কিছুই না সাজিয়ে ইন্টারভিউ কাউন্টার এ চলে গেছিলো এবং আবার ফেরত এসে গুছাতে হয়েছে। তাই আগেই করে ফেলুন। এরপর কনসেন্ট পেপার বলে একটা কাগজ আছে যেটা ওয়েবসাইট এই আছে। আমি নিজে ওয়েবসাইট থেকে প্রিন্ট করে নিয়ে গিয়েছিলাম। আপনি আগে না করে গিয়ে থাকলেও অসুবিধা নেই। ওয়েটিং রুম থেকে গার্ড এর কাছ থেকে চেয়ে নিয়ে কনসেন্ট পেপার এ সব লিখে সই করে ফেলবেন। ১ম ধাপের কাজ এখানেই শেষ।

এরপর সিরিয়াল অনুযায়ী আপনাকে ডাকা হবে। আমার অভিজ্ঞতা শেয়ার করি ~

আমাকে সেভাবে কিছুই জিজ্ঞেস করেন নি। যেয়েই আমি হেসে হ্যালো বলেছিলাম। পাসপোর্ট আর সব অরিজিনাল ডকুমেন্টস চেয়েছিলেন ভিসা অফিসার। আমার বার্থ সাটিফিকেট (ইংরেজি) ছিলোনা। সেটা বললাম আর বাকি সব দিয়ে দিলাম। দেখে ২ সেট ফোটোকপি চাইলেন। দিয়ে দিলাম। এর মধ্যে আমার বিয়ে কবে হয়েছে এবং আমার হাজব্যান্ড কি করে কবে জার্মানি গিয়েছেন এটুকুই জিজ্ঞেস করেছেন। এরপর ৭ হাজার টাকা দিতে বললেন। দিলাম। উনি ৭ হাজার টাকা নিয়ে একটা রিসিট দিলেন। তারপর ম্যাপ চাইলেন আর আমাদের ছবি। এক্ষেত্রে বলি, আমি প্রত্যেক টা ম্যাপ এর সাথে যেকোন একটা সেন্টার পয়েন্ট মার্ক করে বাসা পর্যন্ত বেশ কয়েকটা ছবি এটাচ করে দিয়েছিলাম। দেখে ভিসা অফিসার খুশি হয়েছিল যা বুঝলাম। আর আমাদের ছবি আমি বিয়ে + রিসিপশন সহ ১০ টা,আর স্বাভাবিক ৫ টা, ঘোরাঘুরির ৫ টা নিয়ে গিয়েছিলাম। উনি শুধু ১ টা ছবি রেখে (স্বাভাবিক) বাকি সব ফেরত দিয়ে দিয়েছিলেন। তাই আপনাদের বলবো যেখানে আপনাদের স্বাভাবিক চেহারা বোঝা যায় এমন ছবি ৩/৪ টা অবশ্যই নেবেন। তারপর আমাকে ২৪হাজার টাকা দিতে বললেন। আমি দিলাম আর আমাকে সেটার একটা রিসিট দিলেন।

এরপর আমাকে মিসিং ডকুমেন্টস এর একটা কাগজ দিলেন। সেটা ব্যাসিক্যালি আগের সেই চেকলিস্ট। শুধু যা মিসিং সেখানে ক্রস দেয়া। এরপর তিনি কিছু টাইপ করছিলেন। আর সেটার জন্য যাযা ইনফরমেশন লাগবে তাই আবার জিজ্ঞেস করেছেন। বিয়ের তারিখ, কতজন গেস্ট, স্বামী কবে জার্মানী গিয়েছেন, কোন শহরে থাকেন, কি করেন সেখানে! ব্যস এতটুকুই। এরপর আমাকে থ্যাংকস বলে দিলেন। আমিও সব গুছিয়ে চলে আসলাম।

আমি জানি না কেনো আমাকে আর কিছুই জিজ্ঞাসা করেন নাই। আমার আগের জন যিনি ছিলেন তাকে প্রায় ৪৫ মিনিট ধরে অনেক কিছু জিজ্ঞাসা করেছেন। আজকে একজন আন্টি ছিলেন যিনি তার মেয়ের কাছে যাবেন। তাকে ১ ঘন্টার বেশি সময় ধরে অনেক অনেক অনেক প্রশ্ন করেছিলেন।

তাই ভিসা ইন্টারভিউ দিয়ে এসে আমার যেটা অভিজ্ঞতা হয়েছে সেটা থেকে আমি বলবো, কোনোভাবেই নার্ভাস হবেন না। আমার নিজের ২ টা মেজর মিসিং ডকুমেন্টস আছে। বার্থ সাটিফিকেট ছাড়া আমার ভ্যারিফিকেশান ই শুরু হবে না। তবুও আমি শুরু থেকে শান্ত এবং কনফিডেন্ট থাকার চেষ্টা করেছি। হোপফুলি সেটা কাজ করেছে। তাই আপ্নারা ও একটু হাসিখুশি থাকার চেষ্টা করবেন আর বারবার চেকলিস্ট টা ঠিক আছে কিনা সেটা চেক করবেন। বাসা থেকে কি গুছিয়ে গিয়েছেন সেটা না, ভিতরের চেকলিস্ট অনুযায়ী বারবার চেক করবেন। আশা করবো সবার ভিসা ইন্টারভিউ নিয়ে ভাল অভিজ্ঞতা হবে৷

#বিশেষ #টিপস ঃ সাথে করে কলম আর জেমস ক্লিপ নেবেন। যা কিছু অ্যাটাচ করবেন সব জেমস ক্লিপ দিয়ে করবেন। আর কলম অবশ্যই অবশ্যই নেবেন।

#ব্লক #একাউন্ট #তথ্য ঃ

১) আমি আমার স্ত্রীর নামে ফিন্টিবা তে টাকা ব্লক করেছিলাম সেফ থাকার জন্য। এক্ষেত্রে যেহেতু বাংলাদেশ থেকে টাকা পাঠানোর কোনো উপায় নাই। তাই আমি আমার বিদেশের রিলেটিভ এর অ্যাকাউন্ট থেকে ফিন্টিবা তে টাকা ট্রান্সফার করিয়েছিলাম। টাকার অ্যামাউন্ট ১ বছরের লিভিং কস্ট, যেটা স্টুডেন্ট এর জন্য সেটাই।

২) আমার স্টুডেন্ট জব এর পেপারস + ৪ মাসের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট স্টেটমেন্ট দিয়েছিলাম। তবে শেষ মাসের স্টেটমেন্ট ছাড়া বাকি সব ফেরত দিয়েছেন ভিসা অফিসার। আমার জব ছিলো বলে দিয়েছিলাম।

৩ /৪ মাসের অপেক্ষার দিন শুরু হোলো আজকে থেকে। দোয়া করবেন সবাই।