কাতারে প্লেন মিস হওয়ার পর একদিন দেরী হলো আসতে৷ ফ্লিক্স মিস। এক বড় ভাই এবং আমার বাড়ীওয়ালার সুহৃদয়ের জন্য কোন রকমে চলে এসেছি পাহাড়ে ঘেরা শহরে।

মুখে সোনার চামচ নিয়ে জন্মাইনি। সো কাজ করাটা ফরজ হয়েছিল। সোজা হানা দিলাম বার্গার কিং, পিজ্জা হার্ট, ম্যাগডোনাল্ডসে। স্টাডি রিলেটেড জব কিভাবে কি করতে হয় আইডিয়া ছিল না। সবাই হেল্পফুল ছিল ফুড চেইন গুলোর। কিন্তু সমস্যায় পড়লাম ওয়ার্ক পারমিট নিয়ে( আমার সিটিতে ওয়ার্ক পারমিট আউসওয়াইসের সাথে দেয়!)। সো এই কাজ করতে পারলাম না।

শুরু করলাম Hiwi খোঁজার। যা চোখের সামনে পাই এপ্লাই করি। প্রত্যেকটার জন্য আলাদা সিভি, আলাদা কভার লেটার। ঠিক তখনি ক্যাম্পাসে Job Messe( Job fair) হলে। সব গুলো কম্পানির সাথে গিয়া কথা বললাম। বেশিরভাগই জার্মান চায়৷ তবুও এপ্লাই করেছি। মোটামুটি ৬৩ টা এপ্লাই করেছি সব মিলে! 😂

শুরু হইলো কলিজাতে হাতুরী দিয়ে পিটানোর পালা। একটা একটা করে রিজেকশন খাই আর কলিজায় মাইর পরে। আমার এরিয়াতে একটা সুবিধা হলো ইউনি এর ভেতরে DFKI সহ বেশ কয়েকটা রিসার্চ ইন্সটিটিউট আছে। সো সেখানে গিয়েও এপ্লাই করলাম।

১-১.৫ মাস পরে টানা ৫ টা ইন্টারভিউ থেকে জবের অফার পেলাম। আল্লাহ যখন দেয় তখন কপাল ফাটায়ে দেয় আরকি! 🙄 সব গুলার সাথে কথা বলে DFKI তে Data Analytics এ Research Assistant এবং ZeMA তে Robotics Research Assistant হিসেবে জনেন করি।

এখন পর্যন্ত সেখানেই বহাল তবিয়তে আছি।

মোরাল অফ দো স্টোরি হলো এত ধৈর্য কখনোই ছিল না। না আপনার না আমার। দরকার শুধু একটু প্রেসারের৷ প্রেসার সব Automatic হয়ে যায়।

#Try_Hard