2
***নিজ দায়িত্বে বানাবেন এবং খাবেন…ভালো না লাগলে নাই!

১) প্রথমে পিয়াজু বানায়ে ফেলতে হবে ঝটপট, অথবা হোটেল থেকে কিনে আনতে হবে। পিয়াজু বানানোটা আমার খুব সহজ মনে হয়। আমি যেটা করি- ডাল ঘন্টা খানেক ভিজায়ে রেখে ব্লেন্ডারে অল্প পানি দিয়ে ব্লেন্ড করে ফেলি (মিহি হবে না)। তারপর পিয়াজ কুচি, কাচা মরিচ কুচি, লবন, অল্প মরিচ গুঁড়া, অল্প গরম মশলা গুঁড়া দিয়ে মেখে ছোট ছোট পিয়াজু ভেজে ফেলি। ডাচ লাইফ পিয়াজুর কাছে কৃতজ্ঞ। কত যে শর্টকাট আবিস্কার করা লাগছে 😛

২) এরপর ভর্তার জন্যে পিয়াজু গুলা ভেঙ্গে নিয়ে পিয়াজ- কাচামরিচ-আদা-ধনেপাতা কুচি আর সরিষার তেল – লবন দিয়ে ভাল করে মেখে নেই। একটু লেবুর রস দেই। আজকেরটাতে একটা সিদ্ধ ডিম দিয়ে ফেলছি।

এরপর প্লেটে নিয়ে ভাত মেখে মাত্র খাওয়া শুরু করছি, তখন মনে পড়ছে ফটো তুলি নাই। স্ট্যাটাস দিয়ে সবার মুখে পানিও তো আনা লাগবে। তা মিস করলে কি চলে? দৌড়ায়ে গিয়ে বাম হাতে মোবাইল ধরে ফটো তুলে আনছি। ভাজ্ঞিস বাসার অন্য কেও খেয়ে ফেলে নাই।

অবশ্য একটু আগে আমাদের পিচকাটা বাটির কোনা থেকে ঠোকর দিয়ে একটু খেয়ে গেছে, আর চিল্লায়ে বলছে “আপু, সেই মজা হইছে”