2প্রতিবছর ইউরোপিয়ান জিওসায়েন্স ইউনিয়ন বা ইজিইউ একজন প্রতিভাময় তরুণ বৈজ্ঞানিককে সম্মানিত করে তাদের ‘আউটস্ট্যান্ডিং ইয়ং সায়েন্টিস্ট’ অ্যাওয়ার্ডের মাধ্যামে। এই বছর খবরটি একটু বেশি আনন্দের কারণ বাংলাদেশি সায়েন্টিস্ট ড. অনিমেষ কুমার গাইন সামগ্রিক বন্যা ঝুঁকি ও পানির স্বল্পতা মূল্যায়নে তার উদ্ভাবনী অবদানের জন্য এই সম্মানে ভূষিত হয়েছেন। ইজিইউ ইউরোপের প্রধান ভূবিজ্ঞান বিষয়ক সমিতি। এ সমিতির সাড়ে বারো হাজারের বেশি বিজ্ঞানি ভূবিজ্ঞান বিষয়ে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। যেসব তরুণ বিজ্ঞানী ক্যারিয়ারের গোড়ার দিকেই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে তাদেরকে ইজিইউ আউটস্ট্যান্ডিং ইয়ং সায়েন্টিস্ট অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়। ড গাইনের গবেষণার মৌলিক অবদান হল ঝুঁকি নির্ণয়ে অংশগ্রহণমূলক পদ্ধতি ও স্থান সংক্রান্ত নিরীক্ষণ পদ্ধতির প্রয়োগ। তিনি মূলত জলবায়ু পরিবর্তনের ফল স্বরূপ বন্যা ঝুঁকি ও পানি স্বল্পতার সামাজিক এবং প্রাকৃতিক প্রভাব নিয়ে কাজ করছেন। বিশেষ করে ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা ও সিদ্ধান্তগ্রহণ বিষয়ে ড গাইনের কাজ খুবই সময়োপযোগী। প্রাকৃতিক দূর্যোগ এবং ঝুঁকি সংক্রান্ত বিষয়ে তার গবেষণা অনেক ক্ষেত্রে, যেমন- সমন্বিত পানিসম্পদ ব্যবস্থাপনা ও পানি-শক্তি-খাদ্য বিষয়ে ভূমিকা রাখছে।

ড. গাইনের কাজের পরিধি বোঝা যায় তার গবেষণাপত্রসমূহ থেকে । এ পর্যন্ত ২০টিরও বেশি প্রসিদ্ধ পিয়ার রিভিউড জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে। এই গবেষণাপত্র সমূহে তিনি শুধুমাত্র তার পিএইচডি সুপারভাইজারদের সাথেই কাজ করেননি বরং ইউরোপ এবং দক্ষিণ এশিয়ার একাধিক প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞানীদের সাথে কাজ করেছেন যা তার কাজের গভীরতারও সাক্ষ্য দেয়। তিনি প্রাকৃতিক দুর্যোগ এবং পানি ব্যবস্থাপনা বিজ্ঞান বিষয়ক বিভিন্ন জার্নালে রিভিউয়ার হিসেবে যুক্ত আছেন।

ড. গাইনের কাজ বিশেষ করে বাংলাদেশের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ কেননা জলবায়ু পরিবর্তনে সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর একটি হল এইদেশ। বন্যা এবং খরা এখানকার নিয়মিত প্রাকৃতিক দুর্যোগের অংশ। এই বিষয়গুলিকে মোকাবেলার জন্য লেভারহুমে ট্রাস্ট- ইউকে এবং সহযোগী বিজ্ঞানিদের সহায়তায় ড.গাইন ইতোমধ্যে একটি আন্তর্জাতিক নেটওয়ার্ক তৈরি করেছেন যা বাংলাদেশে সমন্বিত পানিসম্পদ ব্যবস্থাপনা এবং নীতি নির্ধারনী ক্ষেত্রে সহায়তা করবে। বর্তমানে তিনি আলেক্সান্ডার ভন হুমবোল্ড ফেলো এবং গেস্টসায়েন্টিস্ট হিসেবে জিএফজেড জার্মান ভূবিজ্ঞান গবেষণা কেন্দ্র পোটসডামে কর্মরত আছেন। ড. গাইন তার পিএইচডি সম্পন্ন করেছেন ইটালির Ca’ oscari University of Venice থেকে।
1
ই জি ইউ (E.G.U.) অ্যাওয়ার্ড সম্পর্কে আরও জানতে ক্লিক করুন

অনিমেষ কুমার গায়েনের কাজের বিবরন জানতে

REACH advisory panel

গ্রাভিটেশনাল ফিজিসিস্ট,ড. রাকিব রহমান