দেশ থেকে বিদেশে বা বিদেশ থেকে দেশে আসার সময় আপনি কত টাকা/ইউরো/ডলার নিয়ে যেতে পারবেন?

লিখেছেন Magistrates, All Airports of Bangladesh

দেশী বিদেশী মুদ্রা সীমার পরিবর্তিত ভ্রমণ প্যাকেজ
শেষতক না পড়ে ঝামেলায় পড়লে করলে কিচ্ছু কমুনা

Foreign currency allowed during entering or going out from Bangladesh?
…………………………………………………….

তারপরও সবসময় বাংলাদেশ ব্যাংকের আপডেট দেখে নিন। এখানে ক্লিক করে। বাংলাদেশ ব্যাংক এর গাইডলাইন

১. বাংলাদেশী মুদ্রা সীমা
আগমণ বা বহির্গমণকালে কোনরূপ ঘোষণা ছাড়া মাথাপিছু বাংলাদেশী মুদ্রায় সবোর্চ্চ ৫,০০০ টাকা সঙ্গে রাখতে পারবেন। বাংলাদেশী মুদ্রা পাসপোর্টে এন্ডডোর্স হয় না, মনে রাখবেন!

বর্ণিত সীমার অতিরিক্ত টাকা থাকলে, বহির্গমণকালে অবশ্যই ডিপার্টিং বন্দরের যেকোন অথরাইজড ডিলার/ব্যাংক থেকে বিদেশী মুদ্রায় কনভার্ট করে পাসপোর্টে এনডোর্স করে নিন, কারণ ৫০০০ টাকার অতিরিক্ত এক পয়সাও বহন করা যাবে না!

২. বৈদেশিক মুদ্রা সীমা
ক) আগমনকালে যে কোন অংকের বৈদেশিক মুদ্রা সঙ্গে আনতে পারবেন, এনডোর্সমেন্টের বালাই নেই। বুঝেনইতো, যত বেশি আনবেন তত বেশি দেশের লাভ! তবে ৫,০০০ মার্কিন ডলার বা তার সমমূল্যের বৈদেশিক মুদ্রার অধিক হলে নির্ধারিত FMJ ফরমে শুল্ক কর্তৃপক্ষের নিকট ঘোষণা দিতে ভুলে গিয়ে বিপদে পইড়েন না! ঘোষণায় পয়সা লাগে না!

খ) বহির্গমণকালে ‘ভ্রমণ কোটা’ অনুযায়ী বৈদেশিক মুদ্রা অবশ্যই পাসপোর্টে এনডোর্স করে নিবেন। এনডোর্সমেন্ট ছাড়া সিঙ্গেল পেনিও নেয়া যাবে না। তবে Diplomats/Privileged persons/UN personnel, Govt. officials travelling on official duties- এঁদের ক্ষেত্রে এনডোর্সমেন্ট না হলেও চলবে! ফরেইনার ও এনআরবিগণ কিউতে থাকেন, পরে আসছি!

ভ্রমণ কোটা:-

ব্যক্তিগতঃ
বার্ষিক ১২,০০০ মার্কিন ডলার বা সমমূল্যের বৈদেশিক মুদ্রা

>সার্কভুক্ত দেশ এবং মিয়ানমার = ৫,০০০ মার্কিন ডলার বা সমমূল্যের বৈদেশিক মুদ্রা

>বাংলাদেশ কর্তৃক স্বীকৃত অন্যান্য দেশ = ৭,০০০ মার্কিন ডলার বা সমমূল্যের বৈদেশিক মুদ্রা

একসাথে উপর্যুক্ত দু’প্রকারের দেশ ভ্রমণ করলে কত হবে? সাত আর পাঁচে যা হয়!

চিকিৎসাজনিতঃ
ডাক্তারি কাগজপত্র প্রদর্শন সাপেক্ষে ১০,০০০ মার্কিন ডলার পর্যন্ত। তার অতিরিক্ত দরকার হলে বিনা-চিকিৎসায় মরার রিস্ক নেয়ার দরকার নেই। যেকোন অথরাইজড ব্যাংককে প্রয়োজনীয় কাজগপত্র দেখালেই বেঁচে যাবেন! প্রয়োজন সাপেক্ষে অতিরিক্ত মুদ্রার অনুমোদন বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে তাঁরাই নিবে দিবেন।

শিক্ষাজনিতঃ
ব্যক্তিগত ভ্রমণ কোটার সমান। তো টিউশন ফি, হোস্টেল ফি.. এগুলো নিয়ে টেনশনের কিছু নেই। ব্যাংকের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় পরিমাণ মুদ্রা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আগেভাগেই জমা/পাঠিয়ে দিন। প্রবলেম সলভড!

মাইগ্রেশনজনিত প্রথমবারঃ
ওয়েত্তুরি, এক কথা বলতে ভাল্লেগেনা বারবার । সেইম টু সেইম…ব্যক্তিগত ভ্রমণ!

ব্যাবসায়িকঃ
উনারা আমাত্তে বেশি জানেন!

আর কোন “জনিত” বাদ গেলে আমি দায়ী নই। বাংলাদেশ ব্যাংকের ওয়েবসাইট ঘাটুন! যাইহোক, দুষ্টুমি রেখে সিরিয়াস কথায় আসি। যেভাবেই ভ্রমনে যাননা কেন, প্রতি ভ্রমণে সাম্প্রতিক পরিবর্তিত ক্যাশ-হোল্ডিং-লিমিট মনোযোগসহ পড়বেন প্লিজ….

– মার্কিন ডলারে ৫০০০ + অবশিষ্ট প্রাপ্যতা, অন্য অবাধ বিমিনয় যোগ্য বৈদেশিক মুদ্রায়

– মার্কিন ডলার ছাড়া অন্য অবাধ বিমিনয় যোগ্য মুদ্রায় প্রাপ্যতার পুরোটায়, খুব খুশী, না?? মার্কিন ডলারে এত রেস্ট্রিকশন কেন, কইতে পারি না!

– এত খুশী হওয়ার কিছু নাই, এত্তে খুশির খবর আছে, তাই ক্রেডিট/ডেবিট/প্রিপেইড কার্ডে নেয়া যাবে প্রাপ্যতার পুরোটাই, যেখানে মাকিন-অমার্কিন ডলারের কোনরূপ বাধানিষেধ নাই!

১২ বছরের কম ছোট্ট সোনামনিদের মন খারাপ? ১০০ বছর বয়সীরাও যা পাবে, তার অর্ধেক…কম কী!

বৈদেশিক মুদ্রা পকেটে করে নেন আর হাতে করে নেন…পাসপোর্টে এনডোর্সমেন্ট মাস্ট। ভিসা টিকেট কাগজপত্র বাসায় ফেলে এসে বারবার ব্যাংকে লেফ্ট-রাইট করার মানে হয়না। আর ধরুন, বছরের প্রথম ভ্রমণেই লোভ সামালতে পারলেন না… মাশ-আল্লাহ, প্রাপ্যতার পুরোটা নিয়ে দিলেন রওয়ানা। ফিরে এসে দেখলেন কাজের কাজ কিছুই হল না… বেশির ভাগ মুদ্রাই পকেটে! পরের ভ্রমণ খতম?? নাহ, দয়াকরে কার্বমার্কেটে না গিয়ে অব্যায়িত মুদ্রা অথরাইজড ডিলার/ব্যাংকে ক্যাশ করুন এবং রসিদ (এনক্যাশমেন্ট সার্টিফিকেট) সংগ্রহে রাখুন। পরবর্তি ভ্রমণে কোটা এডজাস্টমেন্টে ওটাই একমাত্র ভরসা! 🙂

ফরেইনার, এনআরবিদের আসা-যাওয়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশি মুদ্রা সীমার শর্ত ছাড়া অন্য কোটা শর্ত খাটবেনা। যেই পরিমাণ বোইদেশিক মুদ্রা নিয়ে দেশে এসেছেন অনধিক সেই পরিমাণ অব্যায়িত মুদ্রা পাসপোর্টে এনডোর্স ছাড়াই নিয়ে যেতে পারবেন। আসার সময় ৫০০০ মার্কিন ডলার বা সমমূল্যের অতিরিক্ত হলে নির্ধারিত এফএমজে ফরমে আস্তে করে ডিক্লেয়ার করে আসবেন এবং যাবার সময় সেই ডিক্লেয়ার্ড ফরম বাসায় রেখে আইসেন না! 🙂

স্থল, নৌ বা বিমান, যে কোন বন্দরের ক্ষেত্রেই একই নিয়ম প্রযোজ্য হইবেক! 🙂

দুঃখিত, এত বড় লম্বা ইতিহাসের শেষ লাইন পর্যন্ত আপনাদের ধরে রাখার জন্য অনেক দুষ্টুমি করেছি, ইনফরমাল ল্যাংগুয়েজ ব্যবহার করেছি। ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখারও দরকার নেই.. যা ইচ্ছে তা-ই বলুন!:)

তবে কষ্ট করে পাশের জনকে জানিয়ে দিন। হয়রানি রোধে এগিয়ে আসুন।

এছাড়া পড়তে পারেনঃ

 


কিছু প্রশ্নের উত্তরঃ

Rizwan Khan Joy Ami jodi 1st trip e 5000$ khoroch kori tar mane r baire jete parbo na??

Magistrates, All Airports of Bangladesh কেন নয়? কোটা শেষ হলে প্রয়োজন দেখিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদন নিয়ে যেতে পারবেন।

Drobo Tara Max 5000bdt neowa jabe..but ami jodi kono electronics like TV or other kichu ante jara tax 30000bdt thn ki korbo?kindly janaben. Thank you.

Magistrates, All Airports of Bangladesh বিদেশী মুদ্রা ভাঙ্গানোর সুব্যাবস্থা আছে!

Km Shahunja Dear Magistrates, All Airports of Bangladesh, Thanks a lot for the information… just a personal query, would you please reply…. I knew the Travel Limit, but by mistake I have endorsed all the limit for both SAARC (5000$) and non SAARC(7000$) for the year 2015 in my 2 credit cards. I didn’t think after that how can I carry Cash amount, because i don’t have any amount left for cash. But you know besides credit cards we also need some cash money during travel (for security if credit card does not work). It was my mistake but now what should I do if I want to carry some cash during my travel?

Magistrates, All Airports of Bangladesh যেখানে এনডোর্স করেছেন…সেখানে গিয়ে এনডোর্স কমিয়ে নিন।

Ahsanullah Khan Faisal One query :Being business traveller (traveling for office purpose) If I utilized my Travel Limit before the year end then how can I meet my travel expenses for following travels (office or personal purpose) – please reply!

Magistrates, All Airports of Bangladesh প্রয়োজন ব্যাখ্যা করে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে অনুমোদন নিতে হবে।

Pagol Mon ইনফরমাল ল্যাংগুয়েজটাই বুঝতে পারছি বস্।ফরমালটাই বুঝিনাই।
৫০০০+ অবশিষ্ট প্রাপ্যতা,অন্য অবাধ বিমিনয়(বিনিময় হইব মনে হয়) যোগ্য কি কি কি কি জানি মাথা আউলাইয়া গেছে।প্রাপ্যতা জিনিসটা কি?খায় না মাথায় দেয়?একটু ব্যাখ্যা করেন।অসংখ্য ধন্যবাদ।

Magistrates, All Airports of Bangladesh  এখানে অবশিষ্ট প্রাপ্যতা বলতে বোঝান হয়েছে আপনি অবশিষ্ট কি পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা বহন করতে পারবেন সেটাকে। ধরুন সার্কভুক্ত (ও মায়ানমার) এবং বাইরের দেশ মিলিয়ে আপনি ভ্রমণে যাচ্ছেন। সেক্ষেত্রে আপনি ১২০০০ ডলার সর্বোচ্চ বহন করতে পারবেন (অবশ্যই পাসপোর্ট এ এনডোর্স করে)। এখন আপনি ডলারে বহন করতে পারবেন সর্বোচ্চ ৫০০০ ডলার, বাকিটা অন্য বৈদেশিক মুদ্রায় আপনাকে পাসপোর্ট এ এনডোর্স করাতে হবে। তবে আপনি চাইলে পুরোটাই ডলার ছাড়া অন্য বৈদেশিক মুদ্রায় বহন করতে পারবেন! (কার্টেসিঃ Borhan Uddin Shaun) বিস্তারিতঃ http://goo.gl/GsGM4k

Rizwan Khan Joy Ami to always e 500$ endorce korechi and 1000/1500$ niye baire giyechi.sheta ki tahole illigal?ami joto tk nibo thik toto tk ki endorce korte hbe?

Magistrates, All Airports of Bangladesh মানি লন্ডারিং মামলা খাবেন! অবশ্যই যত বৈদেশিক মুদ্রা বহন করবেন তা আপনাকে পাসপোর্ট এ এনডোর্স করাতে হবে। অন্যথা আইনের চোখে আপনি মুদ্রা পাচার করছেন বলে ধরা হবে।

Akash Sarker একটা প্রশ্ন ছিল, আমার কাছে মাস্টার কার্ড+ক্রেডিট কার্ড আছে যা বাইরের দেশের ব্যঙ্ক সাপোর্টেড, সেটাতে যদি আমি ডলার ক্যারি করি, এবং যদি ৫০০০ এর অধিক, সেক্ষেত্রে কি আমি কি সেটা ডিক্লেয়ার করব?? না করলে নিশ্চয় কেউ ধরতেও পারবে বলে মনে হয় না।। কিন্তু আমি আমার করনীয় জানতে চাইছি।। (যাবার পথে আর কার্ড ইউ.এস.এ এর ব্যাঙ্ক থেকে ইস্যু করা, কিন্তু আমি বাংলাদেশী এবং অন্যকোন দেশের নাগরিক্ত নেই আমার।।)

Magistrates, All Airports of Bangladesh বাইরের কার্ডে আমাদের মত এত বাধানিষেধ নাই। সেক্ষেত্রে কার্ডের ডলারতো আপনার ঐ ব্যাংক থেকেই যাবে। এনডোর্স করবেন কেন? আপনিতো আর বাংলাদেশ থেকে ডলার নিচ্ছেন না। আর যদি বাংলাদেশের কোন ব্যাংকের কোন কার্ড হয়.. বাইরে যাবার আগে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকে গিয়ে কোটা অনুযায়ী কত ডলার পাবেন তা কার্ডে এন্ট্রি দিয়ে পাসপোর্টে এনডোর্স করতে হয়। এন্ট্রি না দিলে বাইরে গেলে কার্ড ইনএকটিভ থাকবে। কার্ড ডুকাবেন..ডলার আসবেনা বা কাজ হবে না!