আজকে ১১ দিন আমি জার্মানিতে। আসলে কিছু কথা বলার জন্যই এই পোস্টটি করা মূলত কিছু সাজেশন দেওয়ার জন্যই। যারা সামনে এপ্লাই করবেন আসবেন তাদের জন্য হয়তো উপকার হতে পারে। আসলে এখানে এসে বাঙালীর দেখা পাওয়া খুবই মুশকিল হয়তোবা বড় বড় সিটি গুলোতে অনেকেই আছে কিন্তু ছোট ছোট সিটি গুলো কনসিডার করলে বাঙালি নাই বললেই চলে অথচ এই তুলনায় ইন্ডিয়ান চাইনিজ নেপালি পাকিস্তানি সর্বত্রই আমাদের চেয়ে অনেক বেশি ছোট এবং বড় সিটি গুলোতে। আমিও চাই আমাদের দেশ থেকে অনেক স্টুডেন্ট আসুক। প্রতিটি ইউনিভার্সিটি’তে ভালো একটা বাঙালি কমিউনিটি থাকুক অনেক ছাত্র থাকুক। কিন্তু মোটিভ টা ঠিক থাকতে হবে।

আমাদের এখানে আসার মোটিভ একটাই ভালো করে পড়াশোনা করা এবং পড়াশোনার পরে কিছু সংখ্যক স্টুডেন্ট দেশে ফিরে যাবে এবং অনেক সংখ্যক স্টুডেন্ট এখানেই থেকে ভালো একটা চাকরির সন্ধান করবে। অনেকেই আছে যারা পড়াশোনা টা কে ফোকাসে না নিয়ে চাকরিটা কে বেশি ফোকাস দিতে চায় , পার্ট টাইম জব করাটাকে বেশি প্রায়োরিটি দিতে চাই। আমার মতে এটা আসলে করা ঠিক নয় কারণ এখানকার পড়াশোনার ধরন আমাদের দেশের তুলনায় পুরোই ভিন্ন।

এখানকার পড়াশোনা টোটালি সিস্টেমেটিক কেউ আপনাকে বুঝিয়ে-সুজিয়ে বকাঝকা করে পড়াবে না আপনারটা আপনাকে করে ফেলতে হবে তা না হলে আপনি সবার চেয়ে পিছিয়ে থাকবেন এবং সেমিস্টার শেষে আপনার রেজাল্ট শূন্য আসবে। আমাদের স্টুডেন্টদের বড় ব্যাধি আই এল টি এস। কেউ একজন আই এল টি এস ছাড়া ভিসা পেয়ে গেছে তার মানে এই নয় আপনিও ভিসা পেয়ে যাবেন তাছাড়া আপনি একটি বাইরের দেশে আসতেছেন এখানে আপনার কমিউনিকেশন টা পুরোটাই ডিপেন্ড করবে ইংলিশের উপরে তার জন্য আপনার ইংলিশে স্কিল ভালো হতে হবে। আর আইএলটিএস দিলে আপনার কনফিডেন্স লেভেল টা অনেক বেড়ে যাবে।

কমিউনিকেশনের ক্ষেত্রে কনফিডেন্স ডেভলপ করা অনেক ইম্পরট্যান্ট। সুতরাং নয় ছয় না ভেবে ভালোমতো আইএলটিএস এর প্রিপারেশন নিয়ে পরীক্ষা টা দেন তারপর ঝাঁপিয়ে পড়ুন অ্যাপ্লাই করার জন্য। আর যে সকল ইউনিভার্সিটি মিডিয়াম অফ ইনস্ট্রাকশন ইন ইংলিশ অ্যাকসেপ্ট করে ওই গুলাতে এমওআই দিয়ে এপ্লাই করে দিন। এবার আসি জার্মানির ল্যাঙ্গুয়েজ নিয়ে।

জার্মানি আসবেন জার্মান ল্যাঙ্গুয়েজে জানবেন না তা তো হয় না। যারা অলরেডি ল্যাংগুয়েজ নিয়ে অনেক প্র্যাকটিস করতেছেন এ১,এ২, বি১ কমপ্লিট তাদের জন্য কিছু বলার নেই কিন্তু যারা আমার মত একেবারেই নতুন তাদের জন্য সাজেশন হচ্ছে আপনি গ্রিটিংস গুলো শিখে আসুন নরমাল কমিউনিকেশনের জন্য হাই-হ্যালো রেগুলার কিছু ইউজফুল ওয়ার্ডস তারপর জার্মান সংখ্যা জার্মান লেটার্স উচ্চারণ এগুলা প্র্যাকটিস করে আসেন উপকার হবে। এছাড়াও যারা আমার মত কখনোই রান্না ঘরে যান নাই দয়া করে আসার আগে এক দেড় মাস রান্না ঘরে যেয়ে মা বোন এদের থেকে কিছু বেসিক রান্না শিখে আসবেন খুব কাজে লাগবে। আর ফাইনালি ফ্যামিলির সাথে খুব বেশি সময় কাটান এখানে আসলে ফ্যামিলি কি জিনিস প্রতিটা সেকেন্ডে উপলব্ধি করতে পারবেন।

অনেকেই ভাবতে পারেন আসলাম ১১ দিন এত ফটোর ফটোর কেন করতেছি। আসলে এগুলো সবকিছুই আমি আমার উপলব্ধি থেকেই বললাম এবং এখানে যারা আছে সবার থেকে জেনে শুনে নিজে উপলব্ধি করে এগুলা বলা এছাড়া কিছু না। সবাই ভালো থাকবেন দোয়া করবেন আর আমি চাই বেশি বেশি বাংলাদেশি স্টুডেন্ট জার্মানিতে আসুক।

Rochi Chakrabarty
Bauhaus University, Weimar, Thuringen, Germany
Msc. in Natural Hazards and Risks in Structural Engineering