১০ দিন হলো জার্মানিতে Mechatronics and Robotics এর উপর মাস্টার্স করতে এসেছি। বাংলাদেশ থেকে আসার সময় বেশ কিছু জিনিস সাথে এনেছি যেগুলো এখানে এসে মনে হয়েছে অহেতুক ওজন বাড়াইছি । তাই নেক্সটে যারা আসবেন তাদের জন্য একটা রাফ লিস্ট দিচ্ছি। আমি এখনো অনেক ব্যাপারেই অজ্ঞ তাই অভিজ্ঞরা কোন সাজেশন দিলে পোস্ট এডিট করে আপডেট করে দিবো।

কি কি অবশ্যই সাথে আনবেন
=====================

  • জিন্সের প্যান্ট ( মিনিমাম ৫, এখানে দাম বেশী মনে হয়েছে )
  • সার্টিফিকেটঃ সকল সার্টিফিকেটের ফটোকপি মিনিমাম ৫ কপি করে করিয়ে নোটারী করে আনবেন। এখানে নোটারীর অনেক দাম।
  • ছবিঃ অবশ্যই জার্মান টাইপের ৩৫x৪৫ সাইজের ছবি বিভিন্ন ড্রেসে মিনিমাম তিন টাইপের করে প্রতিটাইপ ১০ কপি করে আনবেন। কারন অনেক জায়গায় ৬ মাসের পুরাতন ছবি এনাউ করে না। তাই অন্য গুলো ব্যাবহার করতে পারবেন। এদেশে ছবি তুলতে ভালোই খরচ।
  • টিশার্ট ( যতগুলো পারেন, এখানে দাম বেশী মনে হয়েছে )
  • মসলা ( যত বেশী পারেন, এখানে অনেক দাম, অনেক সময় টাকা বেশী দিয়েও পাবেন না। তাই হাইলি সাজেশন থাকবে বেশী করে আনেন, প্রথম প্রথম মনে মসলা ছাড়া খাবারে অভস্থ হতে পারবেন না। তাই বেশী করে আনুন )
  • স্ট্যাপেলার সাথে পিন (এটার দাম কেন জানি বেশী মনে হয়েছে, আপনারা চাইলে বাদ দিতে পারেন। তবে জায়গা যেহেতু ব্যাগে অল্প লাগে তাই নিয়ে নিতে পারেন )
  • ভালো জ্যাকেট ( অবশ্যই রেইন প্রুফ, তবে ২ টার বেশী না )
  • প্লেট ( মিনিমাম ২ টা )
  • শার্ট ( বেশী করে আনবেন, এখানে দাম বেশী )
  • চশমা ( অবশ্যই ৩ টা এক্সট্রা, এখানে দাম বেশী )
  • ভালো মাল্টিপ্লাগ বা বোর্ড, ( ৫০০ টাকা দামের গুলা না কিনে অল্প টাকা বেশী দিয়ে হলেও পারলে বেল্কিন এর টা কিনবেন। বাংলাদেশের সব ব্রান্ডের কম্পিউটারের দোকানে পাবেন ( রায়ান্স কম্পিউটার, স্টার টেক , স্মার্ট ইত্যাদি )। এবার ইলেক্ট্রনিক্স এর দোকান থেকে ইউরোপের কনভার্টার নিবেন। এখানে এই জিনিসের দাম বেশী। এই জিনিস্টা আমি বাংলাদেশ থেকে ৪০ টাকা পার পিস কিনছি, এইটা মসল্লার মত ইম্পরট্যান্ট। ছবিঃ https://ibb.co/wwgYKNW )
  • বালিশ ( এদের দেশের বালিশ অনেক সময় ব্যাবহার করতে সমশ্যা হতে পারে। তাই এই জিনিসটা আপনাদের ইচ্ছের উপর ছেড়ে দিলাম। আমি নিয়ে আসছি, যদিওবা ব্যাগে ভালোই যায়গা খাইছে কিন্তু এমন চিপা মারছিলাম যে পুচকি একটু হয়ে গেছিল। হোম টেক্সটাইলের ৬১৫ টাকার টা নিতে পারেন )
  • বিছানার চাদর+ বালিশের কভার ( এখানে তুলুনা মুলক ভাবে দাম বেশী মনে হয়েছে। তবে এদের দেশের নরম তুলতুলে পশমের চাদর ব্যাবহার করতে চাইলে আলাদা কথা)
  • সিগারেট ( সিগারেট খোর হইলে ২০ প্যাকেট নিয়ে আসবেন। এখানে যে দাম প্রথম প্রথম ফিট খাইতে পারেন )
  • বাংলাদেশ টিশার্ট ( আজিজ মার্কেটে পাবেন, সাথে দেশের পতাকাটা আনবেন। এখানে আসার পর হুট করে দেশপ্রেম আগের থেকে বেড়ে যেতে পারে )
  • পাঞ্জাবী
  • জায়নামাজ + টুপি ( পাতলা সুন্দর দেখে জায়নামাজ নিতে পারেন। টার্কিশ শপ গুলোতেও জায়নামাজ পাওয়া যায়, সিধান্ত আপনার )
  • সুট বা কমপ্লিটঃ এটা দেশ থেকেই বানিয়ে আনুন। এদেশে ভালো মানের বানাতে গেলে দাম কত পরতে পারে আল্লাহ জানে।
  • কীবোর্ড ও মাউসঃ বাংলাদেশ থেকে নিয়ে আসুন। এখানে দাম বেশী বা পাইলেও জার্মান টাইপের
  • ল্যাপটপঃ আমি সাজেশ করব বাংলাদেশ থেকে আনুন। ইংরেজি কীবোর্ড পাইলে চাইলে সরাসরি Dell বা HP এর ওয়েবসাইট থেকে অরডার দিলে ইংরেজি কীবোর্ড সিলেক্ট করার অপশন দেয়।
  • DSLR ক্যামেরাঃ বাংলাদেশ এ দাম কম মনে হয়েছে। আমি বাংলাদেশ থেকে নিয়ে আসছি। মনে রাখবেন জার্মানীতে ইলেকট্রনিকস এর জিনিসপত্রের দাম আমাদের দেশের তুলুনায় কিছুটা বেশী।
  • মনিটরঃ কারো এক্সট্রা মনিটর লাগলে বাংলাদেশ থেকে আনতে পারেন আবার এখান থেকেও। তবে আগে থেকে কেনা থাকলে বাংলাদেশ থেকে নিয়ে আসুন। এখানে দাম বাংলাদেশ এর থেকে কম ভাবার কারন নাই।
  • সফটওয়ারঃ এদেশে টরেন্ট ডাউনলোড করে বিশাল অংকের টাকা গচ্চা দিতে না চাইলে প্রোয়জনীয় সকল সফটওয়্যার বাংলাদেশ থেকে ডাউনলোড করে নিয়ে আসুন ক্রাক সহ।
  • এন্টিভাইরাসঃ ক্যাস্পারস্কি না অন্যান এন্টি ভাইরাস গুলোর দাম এদেশে আকাশ ছোয়া। বাংলাদেশে ১০০০ টাকায় মেবি ১ বছরের জন্য পাবেন। তাই এই জিনিসটা বাংলাদেশ থেকে কিনে নিয়ে আসুন। তবে আমার মত ট্রাইল রিসেটার বা অনলাইনে কী খুজে ব্যাবহার করা পাব্লিক হলে আলাদা কথা 😛
  • মুভিঃ এদেশে টরেন্ট এ মুভি ডাউনলোড করা মহা পাপ। পাপের খেসারত না দিতে চাইলে VPN. তবে আমি বলব কিছু ট্রিক্স এপ্লাই করুন। জার্মানীতে Amazon Prime ছাত্রদের জন্য প্রথম বছর ফ্রী আর পরের বছর থেকে ৫ ইউরোর মত মাত্র। তবে এর জন্য ভার্সিটির দেওয়া ইমেইল আর ব্যাংক অ্যাকাউন্ট লাগে। আপনারা দেশ থেকে যত পারেন ডাউনলোড করে নিয়ে আসুন। এখানে এলে শেয়ারে নেটফ্লিক্স ব্যাবহার করতে পারেন কয়েকজন মিলে । অনলাইনে বিপদ মুক্ত ভাবে দেখতে চাইলে Fmovies বা 123movies ব্যাবহার করতে পারেন। সিনিয়রদের কাছে শুনেছি এই দুইটায় নাকি তারা বছরের পর বছর নিরাপদে মুভি দেখে যাচ্ছেন। আর southfreak. Pw থেকে রিসেন্ট সব মুভির গুগোল ড্রাইভ ডাউনলোড লিংক দেয়, সেখান থেকেও শুধুমাত্র গুগোল ড্রাইভ লিংক গুলো থেকে নিরাপদে মুভি নামিয়ে দেখতে পারেন। কিন্তু কথা হইল মুভি বা ড্রামা দেখার সময় পাবেন তো? 😉
  • ক্যাল্কুলেটরঃ নিউমার্কেটে অরিজেনাল Casio ব্রান্ডের ক্যাল্কুলেটর পাবেন ১৪০০ টাকাতেই। দেশ থেকেই আনুন। তবে এই জিনিসটা প্রয়োজনীয়তা আপনার সাব্জেক্টের উপর নির্ভরশীল।
  • নারকেল তেলঃ আমি অল্প হলেও মাথায় দেই। এই জিনিসটা কেন জানি জার্মানীতে দেখি নাই। নাকি আছে আমি জানি না। তাই দেশ থেকেই আপাতত কাজ সারার জন্য নিয়ে আসুন।
  • বদনাঃ ফোল্ডিং টাইপের বা Portable বদনা পাইলে মাস্ট নিয়ে আসুন। আনতে না পারলেও সমশ্যা নাই। কোক বা পেপসির বোতল দিয়ে কাজ চালানো যায়।

যেগুলো সাথে আনার দরকার নাই
========================

  • খাতা ( TEDi তে ৫৫ সেন্ট বা ৫০ টাকায় পেয়ে যাবেন )
  • কলম ও পেন্সিল ( TEDi তে তিনটা কলমের দাম ১ ইউরো মাত্র, আপনি চাইলে বাংলাদেশ থেকেও নিয়ে আসতে পারেন। এই জিনিসটা যেহেতু ব্যাগে জায়গা কম খাবে তাই আপনাদের ইচ্ছার উপর ছেড়ে দিলাম )
  • রান্না করার ছুড়ি ও কাচি ( TEDi তে ১ বা ২ ইউরোরে ভালো রান্না করার ছুড়ি পাবেন। অহেতুক বাংলাদেশ থেকে আনার দরকার নাই )
  • রান্না করার জিনিস ( TEDI তে ৫ ইউরোতে ৩ টা ফ্রাই প্যান পাবেন। আর বাকি জিনিস গুলোর দাম অনেক কম। অহেতুক ব্যাগের ওজন বাড়ানোর দরকার নাই )
  • ছাতা (TEDi তে ১ ইউরোতেও ছাতা দেখেছি , যারা ছাতা হারানোর ভয় করেন তারা এইটা দিয়ে কাজ চালাতে পারেন। বাংলাদেশ থেকে ৫০০ টাকার মধ্যে ভালো ছাতা পেলে নিয়ে আসবেন। এই জিনিসের দাম এখানে বেশী)
  • জুতা ( ২৩ বা ২০ ইউরোতে যে ভালো মানের জুতা পাবেন সেটা বাংলাদেশে অনেক দাম। তাই প্রাথমিক ভাবে এক বা দুই জোড়া আনলেই হবে। তবে আপনার চোখ যদি ব্রান্ডের জুতার দিকে থাকে তাহলে আমি কোন সাজেশন দিবো না। সেম দাম প্রায়। কপাল ভালো থাকলে অফারে ৫০ ইউরো আর এমনিতেই ১০০+ ইউরো। তাই ওদের ওয়েবসাইট গুলো চেক করে নিবেন। যে জুতাই কেনেন অবশ্যই ওয়াটার প্রুফ)
  • চামুচ+ বাটি ( TEDi বা EURO Shop এ কম দামেই পাবেন)
  • প্রসাধনী ( কোন কিছুই আনার দরকার নাই, এখানে এগুলার স্বর্গ রাজ্য কম দামের জন্য। তবে মেয়েরা দেশীয় কিছু গহনা আনতে চাইলে আনতে পারেন। সব কিছু নির্ভর করছে আপনাদের চাহিদার উপর)
  • সুই ও সুতাঃ TEDi তে পাবেন কম দামে।
  • A4 পেপারঃ TEDi তে পাবেন কম দামে। দেশ থেকে আনার দরকার নাই।

অনেক কিছুই মনে আসছে না , আস্তে আস্তে লিস্ট টা আপডেট করব। বলে রাখা ভালো আমি এখানে দামের ব্যাপারে যে সাজেশন দিয়েছি সেটা প্রথম যারা আসবেন তাদের জন্য। এই পরিবেশে অভস্থ হয়ে গেলে কিংবা জবে ঢুকে গেলে আপনার কাছে দাম কিছুই মনে হবে না। জার্মানি কম দামে কিছু কিনতে চাইলে TEDi, EURO shop, KiK এগুলোর বিকল্প নেই। আপনি যদি বড় শহরে থাকেন তাহলে অনেক কিছুই হাতের কাছে পাবেন। তাই আপনি কোন টাইপের জিনিস বাংলাদেশ থেকে এই দেশে নিয়ে আসবেন সেটা আপনার সিটির উপর নির্ভর করে নিজে নিজে লিস্ট বানিয়ে ফেলুন।
এখানে আসার পর প্রথম প্রথম বাংলাদেশী খাবারের উপর কেন জানি লোভ বেড়ে যায়। তাই কাচা মরিচ , থেকে শুরু করে আমাদের অঞ্চলের জিনিস পত্র পাবার জন্য টার্কিশ, ইন্ডিয়ান , পাকিস্থানী, বাংলাদেশী বা শ্রীলঙ্কান দোকানে টু মারুন। তবে মজার কথা হলো হাতের কাছে এই সব দোকান কয়েকটা থাকলে আবশ্যই সব গুলা ঘুরে দাম যাচাই করে নিবেন। কেন নিবেন আসলেই বুঝবেন।

টার্কিশ এয়ারলাইন্স ২০+২০ কেজি মোট ৪০ কেজি এবং ৭ কেজি হ্যান্ড ব্যাগে আনতে দেয়। ২০ + ২০ মানে দুইটা ব্যাগ, একটা ব্যাগে ৪০ কেজি হলে ঝামেলা করে এবং নাও দিতে পারে। আর ৪০ কেজি একা একা টানা হেচড়া করতে পারবেন কিনা সন্দেহ আছে। কাতার এয়ারলাইন্স ৩০ কেজির একটা ব্যাগ এবং হ্যান্ড লাগেজ হিসেবে ৭ কেজি দেয়। এর বেশী হয়তবা ২ বা ১ কেজি আনতে পারেন বাট আপনাকে হাইকোর্ট ও দেখাইতে পারে। তাই সবাইকে সাজেশন দিচ্ছি যা আনবেন বুঝে শুনে আনবেন। ওয়েলকাম টু জার্মানি।

Md Rajwanul Kabir
Master in Mechatronics & Robotics
FH Schmalkalden University of Applied Sciences