হিজাব যথেষ্ট বিতর্কিত একটি বিষয় জার্মানিতে। প্রায় অর্ধেক জার্মান স্টেট(৮/১৬) হিজাব পড়া ব্যান করেছে। যদিও জার্মান সংবিধান সবাইকে যার যার ধর্ম পালনের অধিকার নিশ্চিত করে, কিন্তু মেয়ে/মহিলাদের কর্মক্ষেত্রে হিজাব পড়া নিয়ে বেশ সমস্যায় পড়তে হয়/হচ্ছে। এই লিগ্যাল ডিবেট শুরু হয়েছিল আজ থেকে প্রায় ১৫ বছর আগে, ১৯৯৮ সালে! জন্মসূত্রে আফগান “ফেরেশতা লুডিন” কে স্কুল টিচার হিসেবে হিজাব পড়তে নিষেধ করে বাডেন-ভুটেমবের্গ এর কালচারাল মিনিস্টার! তার মতে সেকুল্যার রাস্ট্র হিসেবে স্কুল শিক্ষিকারা কিছুতেই এমন কিছু পরিধান করতে পারবেন না যা তাদের ধর্ম এবং বিশ্বাস এর ব্যাপারে নিরপেক্ষতাকে প্রশ্নবিদ্ধ করবে, বিশেষ করে শিশুদের সামনে!

এরকম আরেকটি উধাহরন হলেন মিসেস শাভিন, তিনি জন্মসূত্রে কুর্দিশ। অনর্গল জার্মান বলতে পারেন এবং তার জার্মান সিটিজেনশিপও রয়েছে। কিন্তু তার ধর্মীয় বিশ্বাস কি জার্মানিতে চলাফেরা করতে কোন অসুবিধা করছে? ডয়েচে ভেলে’র এই ভিডিও রিপোর্টটি থেকে তা কিছুটা জানা যাবে! যা-ই হোক, একটা কথা আমাদের মনে রাখতে হবে! মানুষ সবসময়ই পরিবর্তনকে ভয় পায়, অথচ তা অবশ্যম্ভাবী! ধন্যবাদ।
.