এ বছর শীত অনেক আগেই শুরু হলেও তুষার পাত বা তাপমাত্রা মাইনাস হতে একটু দেরিই হয়ে গেলে । অন্যান্য বছর অক্টোবরের শেষে বা নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহেই তুষার পাত হয়ে যায় । আর ব্ল্যাক ফরেস্টের অন্যন্য জায়গার চেয়ে আগেই শুরু হয়ে যায়। কিন্তু এ বছর যেন একটু ব্যাতিক্রমই হয়ে গেল , নভেম্বরের সেকেন্ড সপ্তাহেও তাপমাত্রা +১৭ আর সারাদিনই রৌদ্রউজ্জল যেটি কিনা গতানুগতিক শীতের সাথে যায় না।

লাইফের প্রথম যে কোন কিছুই স্মৃতির পাতায় বিশেষ জায়গাটা দখল করে থাকে। প্রবাস জীবনে নতুন নতুন কত কিছুর সাথেই না পরিচিত হতে হয়। আর নতুন নতুন অনেক পরিস্তিতির মধ্যে পড়তে হয়। লাইফের প্রথম স্নো বা তুষার এর মাঝ দিয়ে হেটে যাবার অনুভুতি ও তেমনই একটি ঘটনা। মনে আছে ২০১২ তে তাপমাত্র -৮ বা -১০ পর্যন্ত নেমেছিল। একেতো প্রচন্ড ঠান্ডা আর তার উপর সারাদিনই গুড়ি গুড়ি বৃস্টির মত তুষার পড়ছেতো পড়ছেই একদম আমাদের দেশের বর্ষা কালের বৃস্টির মত। সাদা সাদা তুলার মত তুষার চারদিকে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। আর রাস্তা ঘাটে চলার জন্য বিশেষ সতর্কতার পাশাপাশি তুষারের মাঝ দিয়ে চলাচলের জন্য মানানসই জুতা না হলে চিৎপটাং হবার সম্ভাব না কোন অংশেই কম নয়। একই ভাবে সারাদিনই রাস্তার মাঝে জমে থাকা তুষার সরানোর জন্য বিশেষ গাড়ি সারাদিনই রাস্তায় চলতে থাকে । এমনও হয় যে তুষার সরিয়ে রাস্তার এক দিক থেকে ১ কিলোমিটার পার হতে না হতেই আবার তুষারে ঢেকে যায় । আর মাঝে মাঝেই তুষারের জন্য দৃস্টিসীমা ও কমে যায়। আর এ জন্য গাড়ি চালাতে হয় অনেক সতর্কতার সাথেই । অনেকতো কথা হল এবার দেখে নেয়া যাক তুষারে ঢাকা কিছু ছবি ।

গতকয়েক বছরের শীতের তুষারপাতের ছবি দেখা যাক এবার

গত বছর ডিসেম্বরের ছবি । তুষার ঢাকা ব্ল্যাক ফরেস্টের সেঙ্কট রোমান।

যেদিকেই তাকাবেন খালি সাদা সাদা তুষারের আস্তরন ।

এটা গতকালকে তুষার পাতের সময়ের ছবি। মজার ব্যাপার হল গতকাল সকালেও রোদছিল। দুপুরের পরেই শুরু হল তুষার পাত।

 

গত বছরের তুষার পাতের সময়ে আমাদের হোটেলের হরিনের খামারের ছবি এটি ।

হরিনের খামারের হরিনের অবস্থা।

তুষারকে যেন পাত্তাই দিচ্ছে না তারা

 

তুষার জমে আছে

তুষারে ঢাকা ব্ল্যাক ফরেস্টে

সামনেই আসছে ক্রিসমাস । তুষারে ঢাকা ক্রিসমাস ট্রি

গত বছর ডিসেম্বরের মাঝরাতের ছবি এটি । তাপমাত্র -১১ , আর এর মাঝে আমরা দল বেধে স্লেটিং এ ব্যাস্ত। লাইফের প্রথম স্ল্যাটিং এর অনুভুতিও অসাধারন।

পাহারের উপর থেকে স্ল্যাট বোর্ড এ করে গড়িয়ে নিচে নামার মজাই আলাদা

তুষারের রাজ্যে আমরা কজন হাল্কা বিশ্রাম আর আড্ডা

ঝতুর পরিক্রমায় শীত ,গ্রীস্ম আসবেই ,সেই সাথে তুষার পাতও হবে প্রতি বছরই , এটাই প্রকৃতির নিয়ম । কিন্তু প্রথমবার তুষার দেখা , সাদা সাদা নরম তুলুর মত চারদিকে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা তুষারে উপর দিয়ে হেটে চলা। গুড়ি গুড়ি বৃস্টির মত পড়তে থাকা তুষারের মাঝ দিয়ে হেটে চল। তুষার দিয়ে আইস ম্যান বানানো বা স্ল্যাটিন এর প্রথম অনুভুতি থেকে সারা জীবন , যেটি হয়ত লিখে প্রকাশ করা যাবে না। সবার শীত ভাল কাটুক শুভ কামনা থাকল।

mm

By Md Anisul Houqe Khan

Vice-President (Media & Marketing) Overall moderation, group, page, website, magazine. Responsible for learn German for FREE movement.

One thought on “জার্মান প্রবাস কথন- প্রথম তুষার পাত ও স্ল্যাটিং”

Leave a Reply