*বিঃ দ্রঃ আমার বাংলা রচনায় কারো যদি মনে সরাসরি আঘাত করে বা কারো গল্পের সাথে মিলে যায় তাহলে আমি প্রথমেই ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি। দেশে থাকলে চাইতাম না, কইতাম যা পারস করগা*

সুচনাঃ “খাইয়া ছেকা কেউ কি আছেন, মোদের দলে আসেন ভাই,
কেউ আমারা মুডে থাকি, কেউবা আবার গা** খাই,
আসলে প্রেমের খেলায় …………।”

দিপুর মুখে প্রথম যেদিন গানটা শুনি টাইগার পাস (চট্টগ্রাম) মোড়ে, তখন আমাদের সকলেন ভাল লেগে যায়। সেখান থেকে আমাদের ভেরিএবল ক্লাবের এর জাতিয় সঙ্গীত এটা।

মুনশি আরিফ রশিদ… ডাক নাম অনিম। বর্তমানে উনি Saarland University তে Computer Science এ Masters করছেন। আমি এবং আনিম এই ক্লাব এর একজন গর্বিত সদস্য। আমার ভাগ্যের জোরে হয়ত ওর সাথে আমার বন্ধুত্ব। আমাদের বন্ধুত্ব ডিপ্লোমা থেকে। আমরা একসাথে ডিপ্লোমা করি, ব্যাচেলর করি, এমবিএ ও করি। কিন্তু বিয়েটা একসাথে করা হয় নাই।

ও ভাল কথা, আমি কে? কি করছি? আমি মোঃ হাসনাইন (টোকন)। বর্তমানে University of Bremen এর Communication and Information Technology তে পড়ছি।

ইচ্ছাঃ আমাদের দুই বন্ধু্র অনেক মিল আবার বেমিলও কম না। যাই হোক সে গল্প না হয় আরেক দিন হবে। দেশের যে অবস্থা আনিম একদিন বলে চল দেশ ছাইড়া পালাই। চাকরী আর ভাল লাগে না। ও একটা কথা বলা হয় নাই, আমরা দুজনেই চাকরী করছিলাম বিগত ৬ থেকে ৭ বছর। ভাল বেতনও পেতাম বেশ কিছু টাকাও হাতে জমেছে। Australia তে মাইগ্রেশন এর ট্রাই করলাম। অনিম কোয়ালিফাই করল, আমি ফেল করলাম। তাই ওটা বাতিল কারন একজন একা কোথাও যাব না। আমি বললাম চল জার্মানি যাই। ওইখানে পড়তে টাকা লাগে না। আমি Facebook কিছু গ্রুপ খুঁজে পাইছি, যারা জার্মানিতে ছাত্র পাঠায় টাকা নেয় না শুনছি। ও আমার কাছ থেকে গ্রুপ এর লিঙ্ক দুইটা নিল। কিন্তু দুটার নাম এ এক BSAAG , একটা বাংলা একটা ইংলিশএ

যাই হোক এটলিস্ট কিছু লোক পাওয়া গেল যাদেরকে শুধুশুধু বিনা পয়সায় জালানো যাবে। শুরু হইয়া গেল জালানো। যখন যে প্রশ্ন মনে আসে সাথে সাথে গ্রপে পোস্ট। কিন্তু গ্রুপ এর লোকগুলার এত ধরয্য যে সব প্রশ্নের উত্তর দিতে লাগল। তাও অনেক তাড়াতাড়ি। একবার তো মনে প্রশ্ন জাগল, তাইলে গ্রুপ এর ইঙ্কাম কি? টাকা পায় কই এরা? আর এখন আমি এই গ্রুপ এর প্রশ্নের উত্তর দেই আর হাসি। হয়ত আপনিও দিবেন একদিন।

একটা মজার কথা বলি একবার আমি গ্রুপ এ পোস্ট দিলাম যদি ভিসা ইন্টার্ভিউ এর দিন উত্তর লিখে নিয়ে যাই তাহলে কি প্রব্লেম হবে। তাঞ্জিয়া আপু পোস্ট আপ্রুভ করে কিন্তু এক এডমিন বড় ভাই তার ধরয্য রাখতে পারে নাই। সে আপুকে বলে বসে যে এ সব আউল ফাউল পোস্ট পেইজ এ আলাউ করেন কেন?? কিন্তু আপুকে এবং রাশেদ ভাইকে ধন্যবাদ। কারন যারা দেশ থেকে আসার চেষ্টা করছে তারা শত দালালদের ভিরে নিজেরাই আউল ফাউল হইয়া গেছে। আর ফেইসবুক এর গ্রুপ গুলা তাদের কাছে বটগাছের শেকড়ের মত। এই গ্রুপ গুলাই আগলে রেখেছে বাংলাদেশের স্বপ্ন প্রিয় ছাত্র দেরকে। এই আউল ফাউল প্রশ্ন গুলা একদিন গুছিয়ে যাবে আর পুরা বিশ্বকে ভাবাবে তাদের মত করে বাংলাদেশকে।

……চলবে……