অনেকদিন ধরেই কথাগুলো বলব বলব করেই বলা হচ্ছে না! জার্মানী আসছি প্রায় ৬ মাস হলো। আসার পর থেকেই অনেক ধরণের অভিজ্ঞতা হচ্ছে, অনেক কিছুই মজার আবার কিছু খুব বিরক্তিকরও! বেশকিছু বিরক্তিকর অভিজ্ঞতার একটা হলো ‘ভাষা’, অনেকেই হয়তো ভাবতে শুরু করেছেন জার্মানীতে গেছো মিয়া ভাষা সমস্যায় পড়বা না, তা হয় নাকি? তাদেরকে বলতে চাই, ভাই ও বোনেরা আমার ‘আমি মিউনেখে থাকি, এখানে মোটামুটি সবাই ইংলিশ পারে! এমন কি দোকানের কর্মীরাও!’ তবে কিছু ব্যতিক্রম যে নাই তা না।

আগেই বলে রাখি, আমার এই লেখা আমার অভিজ্ঞতা আর অনেকজনের ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতার একটা সংকলন! হয়তো আমি তাদের নাম ব্যবহার করব না তবে ঘটনাগুলো অনেকের অভিজ্ঞতার সাথেই মিলে যাবে বা যায়। তাই আগেই আমি তাদের কৃতজ্ঞতা জানিয়ে রাখছি।

এসেই কিছুক্ষণের মধ্যেই আপনার যেই প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হবে তা হলো Are you from India/Pakistan? যদি কপাল ভাল হয় তাহলে দুই-তিন পর! তবে আপনাকে এই প্রশ্ন শুনতেই হবে, আমি হলফ করে বলতে পারি। আর যদি আপনার কপাল খারাপ হয় তবে হয়তো, আপনাকে হিন্দি বা উর্দুতেই এই প্রশ্ন করা হবে! খুবই অদ্ভুত লাগে এই ইন্ডিয়ান বা পাকিস্থানীদের ব্যবহারগুলা! অনেকেই দেখি আগ বাড়িয়ে তাদের সাথে হিন্দি বা উর্দুতে কথা বলেন! তবে আমার রুচি হয় না! হ্যাঁ, হিন্দি মুভি দেখার কারণে হয়তো আমি কিছু হিন্দি জানি! তাই বলে আমি কেন তাদের ভাষায় কথা বলব? আপনি হয়তো বলবেন হিন্দি বা উর্দু আর বাংলা প্রায় একই! তাদের বলছি, আপনি চাইলেই তারা কি বাংলা ভাষায় কথা বলবে? বলবে না। তবে আপনি কেন বলতে যাবেন?

এবার আমি কিছু অভিজ্ঞতার কথা বলব। জার্মানী আসার একদিন পরেই গেছি সিটি রেজিস্ট্রেশন করতে। ওখানে গিয়ে এক পাকিস্থানীর সাথে দেখা, সে আমাকে দেখেই দৌড়ে এসে বলে Are you from Pakistan? আমি বললাম, না। চুপসে গিয়ে বলে উর্দু জানো? আমি বললাম না। হতাশ হয়ে চলে গেল! অন্য একদিনের ঘটনা, আমার হলে এক ইন্ডিয়ান ছেলে, হিন্দিতে আমাকে জিগায় আমি ইন্ডিয়া থেকে আসছি কি না!!! আমি ইংলিশে বললাম তোমার কি কোন সাহায্য দরকার? এরপর থেকে স্বাভাবিক ভাবেই কথা বলতে শুরু করল।

অন্য আরেক ভাইয়ের অভিজ্ঞতা, ট্রেন ষ্টেশনে এক ইন্ডিয়ান তাকে প্রশ্ন করছে, Are you from India? সে রেগে গিয়ে ইন্ডিয়া আবার কই? সেই ছেলে থতমত খেয়ে চুপ হয়ে গেছে। এরপর সেই ভাই তারে বসে বসে প্রশ্ন করা শিখাইছে!

আরেক ভাইয়ার অভিজ্ঞতার কথা শুনেই সেই মজা পাইছি! ট্রেনের ভিতরে ওনাকে দেখে এক পাকিস্থানী আগাইয়া আসছে, এসে উর্দুতে জিজ্ঞাসা করতেছে এই জায়গাটা কোথায়? ওই পাকিস্থানী উর্দুতে প্রশ্ন জিগায় আর ভাইয়া বাংলায় উত্তর দেয়! সেই লোক কিছু না বুঝে ভাগছে।

এত গেল ভাল অভিজ্ঞতা! অনেকেই আছেন যারা বুক ফুলিয়ে ওনাদের সাথে হিন্দিতেই কথা বলেন এবং গর্ব বোধও করেন! গর্ববোধ আপনি করতেই পারেন! ইংলিশ বা জার্মান না বলতে পারলেও আপনি হিন্দি বলতে পারেন! সেটা কি কম গর্বের!!! তবে সবাই গর্ববোধ করেন না, অনেকেই আছেন যারা এ থেকে মুক্তির পথ খুজতেছেন! কিন্তু ভয়ংকর তথ্য হচ্ছে আপনি চাইলেই তা পারবেন না! আপনি যদি এদের সামনে আপনার মুখ থেকে একবার হিন্দি বা উর্দু বলেছেন তবে আর হয়েছে! ওই শহরের আর সব ইন্ডিয়ান বা পাকিস্থানীরা জেনে যাবে যে আপনি হিন্দি বা উর্দু বলতে পারেন!!!

যারা এই বিপদ থেকে মুক্তির পথ খুঁজতেছেন তাদের জন্য হয়তো আমি কোন পথ বলে দিতে পারব না। তবে যারা আসছেন তাদেরকে আমি সাবধান করে বলতেই পারি, মাতৃভাষা ব্যতিত অন্য যে ভাষাতেই আপনি কথা বলেন না কেন, আপনার অস্বস্তি লাগবেই। অস্বস্তি যেহেতু লাগবেই, তবে কেন হিন্দি বা উর্দুতে কথা বলা? এর থেকে সেই অস্বস্তিটুকু আপনি ইংলিশ বা ডয়েচে ব্যবহার করেন। অনেক কাজে দিবে।


আরো পড়তে পারেনঃ

বাংলা-হিন্দি-উর্দু-প্রবাস-জীবন-বেঁচে-থাকা-পথ-চলা

ঊর্দূ মে বোলো!!!

বোধোদয় – জার্মান ভাষা

আপ কাহাসে আয়ে হ্যায়, ইন্ডিয়া/পাকিস্তান?

প্রবাসে নিজ ভাষা