snowman

বড়দিনের ছুটির আমেজ কাটতে না কাটতেই জার্মানিতে এবার শুরু হলো তুষারপাত। অনেকের জন্যেই এই প্রথম তুষার দেখার অভিজ্ঞতা সবার ফেসবুক এর ছবি দেখে wow মনে হলেও এরপরে কিন্তু খবর হয়ে যাবে। তাই সময় থাকতে বিশেষ কিছু সতর্কতা
১. গরম চা, কফি, দুধ বা যেকোন গরম পানীয় টনিকের মতন কাজ করে। যেকোন ঠান্ডা জায়গায় যাবার আগে ও পরে পান করে নিলে জর-কাশি থেকে মুক্তি। সাথে চায়ের ফ্লাস্ক নিয়ে ঘোরাঘুরিও মন্দ না।

২. মোজা, হাত মোজা, মাফলার, কানটুপি গরম না? এই ব্যাপারগুলো অবহেলা করলে কিন্তু আক্কেল সেলামি দিতে হবে। C&A তে চট করে ঘুড়ে আসলে সস্তায় কিছু কিনেও ফেলা যাবে।

৩. জুতা waterproof হতেই হবে, নাহলে কিন্তু বিপদ। যদি পায়ে বেশি ঠান্ডা লাগে deichman,DM,Rossmann অথবা অনেক সুপারমার্কেট এ পা গরম রাখার জন্যে আলাদা ইন-সোল্ পাওয়া যায়। এই আলাদা ইন-সোল্ জুতার ভেতরে পরে নিলে পা ভালই গরম থাকে। এক জোড়াই কিন্তু জুতা বদলের সাথে বদল করে পরে নেয়া যায়।

৪. জ্যাকেট যে কেনা হয়েছে তাতে ও ঠান্ডা লাগছে? C&A, H&M এমনকি ALDI, REAL, Penny, Tchibo তে খুজলে পাতলা সোয়েটার এর মতন বা হুডি জ্যাকেটের মতন পাওয়া যাবে। মনে রাখতে হবে মাটেরিয়ালটা যেন “Fleece” হয় কারণ এই ফ্লিস গরম থাকতে সাহায্য করবে। Uniqlo also has Heat tech products worth trying.

৫. সাবধান রাস্তা ঘাট বয়াবহ পিচ্ছিল হবে, হাতে সময় নিয়ে বের হতে হবে। কোনো মতেই দৌড়ে বাস,ট্রাম ধরা যাবে না। তাহলে কিন্তু কোমর ভাঙ্গা থেকে রেহাই নেই।

৬. টাকার চিন্তা আসবে কিন্তু ফ্যাশন না করে ঠান্ডা যাতে লেগে না যায় সেই ভাবে দিনকাল কাটাতে হবে। নাহলে আক্কেল সেলামি হবে।

 

শুভকামনা রইলো সবার জন্যে…

তানজিয়া ইসলাম

ডিসেম্বর, ২০১৪

স্বাদ-আহ্লাদ আর খানাদানা ৮: গরিবী হাল-নবাবি চাল

প্রবাসী ছাত্রদের অনশন বিষয়ক কিছু কথা