আসসালামু আলাইকুম।

সূচনা:
ইউ ব্লু কার্ড পেতে করণীয়

প্রশ্ন: ইউ ব্লু কার্ড পেতে যে ৫ – ৬ (মতান্তরে ৬ – ৮) সপ্তাহ অপেক্ষা করতে হয়। সে সময় কি করণীয়?

উত্তর:
এই ব্যাপারটাকে মূলত ৩ ভাগে ভাগ করা যায়:

১। আপনার চাকরি শুরুর তারিখ ৮ সপ্তাহ পরে।
এই অবস্থাটা হল আপনার জন্য সবচাইতে ভাল। তাই আমি আমার পূর্ববর্তী লেখায় বারংবার বলার চেষ্টা করেছি স্টুডেন্ট অবস্থায় থিসিস পেপার জমা দানের অন্তত ২ – ৩ মাস আগেই চাকরির কন্ট্রাক্ট পেপার নিয়ে নিতে। এতে করে আপনার উপর চাপ ও চিন্তা সবচাইতে কম থাকবে। তাই এই অবস্থাকে আমরা বেস্ট কেস বলতে পাড়ি।
কিন্তু এই অবস্থাতেও একটা সমস্যা হতে পারে, যার জন্য আপনি দায়ী না হলেও ভিকটিম অবশ্যই আপনি। আর সেটা হল, আপনি ৮ সপ্তাহ পরে অর্থাৎ চাকরি শুরুর তারিখের আগে ইউ ব্লু কার্ড হাতে পেলেন না। তাহলে আপনি কি করতে পারেন? এক্ষেত্রে আপনি ৫ – ৬ সপ্তাহ পর থেকেই ভিসা অফিসারকে ই-মেইল দেওয়া শুরু করে দিতে পারেন। তাদেরকে জানাতে পারেন আপনি এখনো ইউ ব্লু কার্ড হাতে পাননি (৬ সপ্তাহ পর দেওয়াই সমীচীন বলে আমি মনে করি)। আমি নিজেও ৬ সপ্তাহ পর দিয়েছি, যার ফলে ২ – ৩ দিনের মধ্যে আমার হাতে ইউ ব্লু কার্ড চলে এসেছে বলে আমি মনে করি। এখন প্রশ্ন হল: কোন ই-মেইল এড্রেসে ই-মেইল করবেন? আপনি যাকে কাগজ জমা দিবেন তিনি তখন থেকে আপনার প্রাইমারি কন্টাক্ট পারসন (অফিস ভেদে ভিন্ন হতে পারে)। আপনি প্রয়োজনে যখন কাগজ জমা দিবেন তখন জিজ্ঞেস করে শিওর হতে পারেন আপনার কোন জিজ্ঞাসা থাকলে আপনি কোন ই-মেইল এড্রেসে যোগাযোগ করবেন। আশা করি আপনি উত্তর পেয়ে যাবেন।

২। আপনার চাকরি শুরুর তারিখ ৮ সপ্তাহের মধ্যে।
৩। আপনার চাকরি শুরু ইউ ব্লু কার্ডের আপ্লাই করার আগে।
২ ও ৩ উভয় ক্ষেত্রে আপনি যেদিন কাগজ জমা দিবেন সেদিন আপনি আপনার ভিসা অফিসারকে Fiktionsbescheinigung (Fictional Certificate) বা গ্রহণযোগ্য কোনো কাগজ দিতে অনুরোধ করুন। যেটা দেখিয়ে আপনি ইউ ব্লু কার্ড পাওয়ার আগ পর্যন্ত কোনো সমস্যা ছাড়া চাকরি শুরু করে দিতে পারবেন। আপনি যদি স্টুডেন্ট ভিসায় থাকেন তাহলে আপনি ফুল টাইম চাকরি শুরু করতে পারবেন না। তাই এই কাগজ অত্যন্ত জরুরি আপনার জন্য। ভিসা অফিসার যদি কিছু দিতে না চায় তাহলে সেটা তার অজ্ঞতা। আমার এক পরিচিত তাকে ভিসা অফিসার অন্য একটা কাগজ দিয়ে বলেছে ওইটা দিয়ে কাজ হবে। কিন্তু কাজ হয় নি। যার ফলশ্রুতিতে আমার সেই পরিচিত ব্যক্তি ফুল টাইম চাকরি শুরু করতে পারেননি এবং পরবর্তীতে তিনি যখন আবার ভিসা অফিসে যায় তখন তার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করা হয় ভিসা অফিসারের ভুলের কারণে। কিন্তু যা ক্ষতি হবার তা তো হয়েছে। যাই হোক আমি আসলে এতক্ষণ কাগজের মাহাত্ম্য বুঝানোর চেষ্টা করলাম। সাথে এও বুঝানোর চেষ্টা করলাম যে, এইখানে যেই ভুল করুক না কেনো, ভিক্টিম কিন্তু আপনি একাই 😛

সর্বোপরি, ইউ ব্লু কার্ডের কাগজ জমা দেয়ার তারিখ পেতে বিলম্ব হলে আপনি আপনার চাকুরিদাতা প্রতিষ্ঠানকে স্টুডেন্ট জব দেয়ার জন্য অনুরোধ করতে পারেন। আশা করি তারা রাজি হবেন।

আপনাদের সকলের জীবন সুখী হোক আর সকলের কাছে দোয়া চেয়ে লেখাটার ইতি টানলাম। আল্লাহ হাফেজ।