যারা আমার মত নতুন স্টুডেন্ট হিসেবে বার্লিনে বাসা খুঁজছেন তাদের আমার এই অভিজ্ঞতাটা একটু কাজে লাগবে বলে আশা করছি। সবার কাছ থেকে এবং সব জায়গা থেকে শুনেছি বার্লিনে বাসা পাওয়া অনেক কঠিন আর studentenwerk এর ডর্মে সিট পেতে কমপক্ষে ১ বছর অপেক্ষা করতে হয়। এটা তাদের সাইটেও লেখা আছে। যেহেতু ডর্মে সিট পেতে অনেক সময় লাগবে তাই আমি প্রাইভেট accommodation খুঁজতে থাকি।কিন্ত প্রাইভেট accommodation খোঁজার ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতাটুকু এখানে শেয়ার করতে চাই না।

বাসা খোঁজার সময় একজনে সাথে কথা হয় এবং জানতে পারি উনিও আমার মত লাস্ট সামারে জার্মানিতে অ্যাপ্লাই করেছিলেন এবং ডর্মেও সিট পেয়েছেন কিন্তু উনি এখনো ভিসা ইন্টারভিউ দিতে পারেননি। বার্লিনে ডর্মে রুম পাওয়ার ব্যাপারে যা শুনেছি এতে উনার লাস্ট সামারে দেশে বসে ডর্মে সিট পাওয়াতে আমি অবাক হই। পরে আমার কাছে মনে হয়েছিল গত সামারে বাংলাদেশ,ইন্ডিয়া এবং পাকিস্তানের অনেকেই যেতে পারেনি এই উইন্টেরেও সবার যেতে কিছুটা লেইট হবে তাই এখন ডর্মে সিট পাওয়ার একটা সুযোগ আছে।

সেই অনুযায়ী আমিও গত ৬ সেপ্টেম্বর ডর্মে আবেদন করে একটা রুম দেয়ার অনুরোধ করি এবং ৭ তারিখ আমাকে বলা হয় ১ বছর সময় লাগবে আমাকে রুম দিতে। সাথে সাথে আর একটা ইমেইল দিয়ে অনুরোধ করে বলি আমাকে একটা রুম দিতে। ৮ সেপ্টেম্বর ২টা রুমের অফার আসে আমার ইমেইলে। খুব খুশি হয়ে কোন রুম নেব ভাবতেছিলাম তখনি আর একটা ইমেইল দিয়ে বলে ভুল করে তোমাকে মেয়েদের রুমের কন্ট্রাক্ট পাঠিয়েছি, তোমাকে খুব দ্রুত তোমার রুমের কন্ট্রাক্ট পাঠানোর চেষ্টা করব। একটু আশাহত হলেও মনে হয়েছিল যেহেতু অন্য আর একজনকে রুম দিচ্ছে তার মানে রুম খালি আছে। এর আধ ঘন্টা পর আমাকেও ২টা রুমের অফার পাঠায় এবং ৯তারিখ আমি ডিপজিটের টাকা দিয়ে দেই।

বর্তমান অবস্থার কারনে এত সহজে ডর্মে রুম পেয়েছি কিনা নিশ্চিত ভাবে জানিনা। তবে কারন যাই হোক যেহেতু একজন লাস্ট সামারে দেশে বসে বার্লিনে ডর্মে রুম পেয়েছেন এবং আমিও এই উইন্টেরে দেশে বসে বার্লিনে ডর্মে রুম পেয়েছি তাই যারা বাসা খুঁজছেন তাদের বলব আপানারা ডর্মে ভালভাবে কথা বলুন পারলে দেখা করে কথা বলুন আশা করি আপনারাও ডর্মে সিট পেতে পারেন।(ব্যাস্ত থাকার কারনে পোস্ট করে কিছুটা দেরি হয়েছে)ধন্যবাদ।