যখন থেকে আমি “জার্মান প্রবাসে” র content গুলা পরতাম তখন আমার একটা ইচ্ছা ছিল আমি যদি কখনো GERMANY তে যাই তাহলে আমিও একটা content লিখবো আমার journey নিয়ে। Maybe this is the day 🙂

আকাবাকা শুরুঃ

Phase 1:

Masters করবো এইটার ইচ্ছা খুব প্রবল হয় আমি যখন EWU র last year এ ছিলাম। EWU তে যখন পরতাম তখন খুব প্যারার মধ্যে ছিলাম। আমার কিছু বন্ধু AIUB তে পড়তো ওদের result শুনে মনে হইত result ভাল করা কত সহজ আহা… আর যখন AUST, NSU, BRAC এর দোস্তোদের সাথে দেখা হইত তখন হটাত পরাশুনার কথা শুরু হইলে সবাই বলতাম “ফলাফল জানতে চেয়ে লজ্জা পাইয়েন না আমাকেও লজ্জা দিয়েন না”। এই result এর বিষয় গুলা মাথায় আসলো Last year এ  কারণ তখন বোঝা শুরু করলাম result (+ other things) ছাড়া Higher Study (With Funding/Scholarship) করা tough। যাক  EWU এর এই প্যারা পাওয়ার পরে শিক্ষা হইলো দেশ এ B.Sc. করতে এত প্যারা পাইলাম তাহলে M.Sc. ভুলেও দেশে করবো না  যদি কোনদিন সুযোগ পাই তাহলে দেশের বাইরেই করবো (যদিও দেশের বাইরেও প্যারা আছে)। আমি কখন ই ভাল Student ছিলাম না তারপরও EWU থেকে মোটামুটি একটা result নিয়া (As usual) Graduation শেষ করলাম ।

Phase 2:

তারপর চিন্তা করলাম IELTS, Apply process etc. করতে কিছু সময় তো লাগবেই So in the meantime আমি একটা Pressure less Job করি যেইটাতে Experience ও হইলো কিছু পয়সা পাতি ও আসলো। Try করতে থাকলাম Job এর জন্য আর senior ভাই ব্রাদার অবস্থা দেখে বোধগম্য হইলো Job field এ মামা, চাচার কি importance :). যাক যেমন Job চাইছিলাম ঠিক তেমন ই একটা Job পাইলাম (Without মামা, চাচা :p)। তারপর apply করার জন্য প্রথমে choose করলাম USA, Canada র University গুলা। যদিও আমি জানতাম আমার result দিয়া হবে না কিন্তু TRY করতে দোষ কি? হন্ন হয়ে খুজতে থাকলাম Professor দের profile and Emailing address রাত দিন সমান বানায় ফেল্লাম। একটা Excel বানায় ফেললাম Emailing address, University Ranking এর । খেলা শুরু ১০০+ টা Professor কে Detail Email দিলাম আর আমার মুল চাওয়া ছিল  Funding। একটা মিথ্যা কথা লেখলাম Email এ যে আমি IELTS দিয়ে দিছি কারণ আমি তখন ও IELTS এর ব্যাপারে কিছুই জানি না আর Xm তো পরের কথা। যাক শুধু এইটা দেখার জন্য Email করছিলাম যে কেও Funding offer করে কিনা, আর আমার জন্য Scholarship ছিল হারাম (কারণ যে result ছিল …) ১৫ দিন এর মধ্যে সব reply চইলা আসলো হিসাব করে দেখলাম No answer – Around 60, Feedback দিসে ৪০+ এর মত, এর মধ্যে ৩৫ জন কোনও Funding দিতে পারবে না । ৫ জন ছিল যারা হালকা একটু Interested ছিল এই কারনে যে আমি কিছু (Around 10) Online Course করসিলাম ওইগুলার জন্য। ভাল ভাল University র Course ছিল। এর মধ্যে MIT, Harvard, Microsoft(Not university :D)  ও ছিল। যদিও আমি আমার result নিয়া সবসময় ই হতাশ ছিলাম, তারপর ও এইটা চিন্তা করে ভাল লাগত যে World এর #1 University থেকে Online Course Successfully Certificate সহ শেষ তো করতে পারসি। যে ৫ জন professor Interested ছিল তাদের আবার condition ছিল 1st semester আমার পয়সা দিয়ে পরতে হবে তারপর তারা RA হিসেবে নিতে পারবে। তো হিসাব করে দেখলাম এক semester এ যা cost লাগবে তাহা ব্যাপক । USA, Canada mission finished 🙁 .

Phase 3:

এরপর আসলাম EUROPE search এ। কম cost, weak profile এ কোন দেশ এ M.Sc করা যায় সাথে আবার job field, Environment Etc। ৫ টা European Country Select করলাম। আবার Excel সব info add করলাম Email, Country, University Rank, Cost, Requirement Etc. আবার রাত দিন এক হয়ে গেল এর মধ্যে University এর এক senior ভাই বলল Germany তে try কর, আমি তারে বললাম ভাই আমার এই profile এ হবে না কারণ Tuition Fee নাই ওইখানে competition আর বেশী। যাক পরে আবার Emailing শুরু, সব info collect করা শেষ তারপর country আর city র info নেয়া শুরু করলাম। সব রকমের info নেয়ার পর পাইলাম নতুন UNIVERSITY “জার্মান প্রবাসে” :)। ধুমায়া সব content পরা শুরু করলাম। Then সব কিছু মিলায় decide করলাম না Germany তেই M.Sc. করবো। UNIVERSITY র info নিলাম আবার Excel । Deadline সহ সব list করে ফেললাম। এখন problem IELTS যেহেতু সব info নেয়া শেষ তাই তখন একটু Relaxed হয়ে গেলাম আর শুরু হইলো ঢিলামি। একটা Semester এর Deadline পার হয়ে গেল তারপর ও IELTS দেয়া হইলো না। office a কোনো pressure ছিল না তারপর ও কিছু হইলো না। তারপর চিন্তা করলাম না IELTS টা দেয়া উচিৎ। এর মধ্যে আবার list করলাম কোন UNIVERSITY গুলাতে IELTS লাগে না Language of Instruction দিয়ে Apply করা যায়। কিছু UNIVERSITY পাইলাম।

Beginning of Application:

Apply করলাম আর এর মধ্যে দেখলাম আমার কিছু পছন্দের UNIVERSITY র Deadline ও চলে যাইতেছে যেগুলাতে IELTS লাগবে। হটাত IELTS registration করে ফেললাম কিন্তু পরতে আর বসা হয় না। Exam এর বাকি ২০ দিন আমি তখন ও জানি না IELTS এর syllabus। ভয় ঢুকে গেল শুরু হয়ে গেল IELTS preparation. Exam ও দিলাম ভালই দিলাম মনে হইলো কিন্তু result publish হইলো উল্টা। Writing part এ ছোবল দিয়া দিলো। Total Band score আসলো ৫.৫। মাথা গরম নিজের উপর চরম মেজাজ খারাপ হইলো। এই খরার মধ্যে যে UNIVERSITY তে apply করছিলাম Rejection Email পাঠাইল। পয়সা নষ্ট করে ১ মাস পরে আবার registration করলাম। Result দিলো requirement fulfilled এইবার। ২ টা UNIVERSITY তে apply করলাম।

অবশেষে Email : 

দুপুর ২ টা ৩০ মিনিট আমি তখন অফিস এ,  Email frequently check করার অভ্যাস টা অনেক আগে থেকেই আমার ছিল। তার উপরে আবার Master এর জন্য apply করার পর থেকে আরও frequently check করতাম। যাইহোক ২ টা ৩০ মিনিটে (16th February) একটা Email আসলো “We look forward to inform you that you have been admitted for the subject- Laser and Photonics Master (single subject)”। ব্যাপক খুশি হয়ে গেলাম। যে UNIVERSITY তে আমি ধইরা রাখছিলাম Rejection খাবো ওইটায় ই admission পাইলাম আর যেইটায় ধইরা রাখছিলাম admission পাবো ওইটায় কিছু দিন আগেই Rejection খাইছিলাম।

 

Processing (Before Arriving):

Admission এর Email পাইলাম ১৬ February আর Enrollment date দিলো 28 March-7 April. মাথায় ধরল না কেমনে কি শুরু করবো। Blog থেকে সব info গুলা তো আগে থেকেই জানতাম তারপর Step by Step process শুরু করলামঃ

Step 1: (Bank Statement)

Bank statement নিলাম 8640 Euro Equivalent.

Step 2: (Account opening documents)

FedEx এর বনানী Branch থেকে Prepaid Envelop কিনে, Bank account open করতে যে Document গুলা লাগে সব Embassy তে জমা দিলাম আর ১৭০০ Taka fee দিলাম।

Step 3: (Health Insurance)

Health Insurance (Travel) করলাম ১৫ দিনের।

Step 4:

Embassy face করতে যে Documents গুলা লাগে সব গুছানো শুরু করলাম।

Step 5: (EURO transfer)

Documents Send হওয়ার ৩ দিন মাথায় Bank account open এর Email পাইলাম, তারপর DBBL এ student file open করে ৮৯০০ EURO পাঠায় দিলাম।

Step 6: (VISA Appointment)

Embassy র Appointment নিলাম 8th March. ৮.৩০ এ ছিল Interview Time। ৯.৩০ এ ডাকল। মুটামুটি Nervous ছিলাম।

Step 7: (Interview)

May be the shortest Interview. একটা Smart মেয়ে ছিল Interviewer (Counter 3)।   ২ টা Question ask করছে মাত্রঃ

Q1:

What type of wire is used in Electrical Industry and Electronic Appliance?

Q2:

What will be the total credit covered in your M.Sc. program?

That’s it তারপর Finger Print নিলো।

আমি মোটামুটি sure ছিলাম VISA reject হবে কারণ আমি শুনছিলাম কম question করা মানে কোনও একটা ঘাপলা আছে। So আমি যেহেতু VISA পাইয়া গেছি তো কথা টা মনে হয় সত্য না।

Step 8: (Flight Booking)

VISA পাই 13th April. (ও আমি University তে Email করে Enrollment date extend করে নিছিলাম 3rd May পর্যন্ত) তারপর উরাল জাহাজ এর Ticket Booking দেই (Turkish Airlines) 27th April এর।

Learn German Deutsch Lernen জার্মান ভাষায় পানীয়

Processing (After Arriving):

আমার Airport ছিল Dusseldorf । Land করি ২৭ তারিখ ৬.০০ PM এ । তারপর German দের assistance এ বিভিন্নযোগে Hotel (Witten, Germany) এ আসি । Bangladesh থেকে Dorm বা বাসা manage হয় নাই তাই Hotel এই ছিলাম কয়েকদিন।

Germany আসার পরে যে administrative কাজ গুলা করতে হবে:

“City to City vary করে এইটা আমি যে তে city আছি (BOCHUM) ওইটার steps, but অন্য city গুলা তেও খুব বেশী change হয় না “:

Step 1: Health Insurance (TK, AOK or others).

Step 2: University Enrollment.

Step 3: If you can not manage dorm then with university enrollment paper contact University dorm or Local dorm etc.

Step 4: Contact with Town hall (Rathaus) to complete city registration.

Step 5: City Registration এর paper পেয়ে গেলে, জলদি Deutsche Bank এ গিয়ে একটা Bank account activation এর form আছে ওইটা fill up করে form এ Hamburg এর address এ City Registration Paper and Filled up form sent করতে হবে।

Step 6: Bank এর সব কিছু usually  ৭-৮ দিন এর মধ্যেই চলে আসবে। তারপর “Foreign office (Auslandsbüro)” গেলেই VISA extension, Work Permit, Residence permit এর জন্য কি কি করা লাগবে সব বলে দিলে।

এই সব কাজ গুলা শেষ করলেই নিশ্চিন্ত।

This is the journey of mine so far. সবাই ভাল থাকবেন আর সবাইকে ভাল রাখবেন 🙂

My Short Profile:

Bachelor: East West University, Dhaka, Bangladesh
Subject: Electrical and Electronic Engineering

Masters: Ruhr University Bochum, Bochum, Germany (Currently Enrolled)
Subject: Lasers and Photonics

Currently Living in Bochum, Germany