ট্রামের মধ্যে যে গেট দিয়ে মানুষ ঢুকে তার অপজিট সাইডের গেটের জায়গা টা মুলত বাচ্চাদের ভাগেন (বাচ্চাদের ট্রলি) রাখার জন্য মহিলা যাত্রীরা ব্যবহার করে, যদিও ব্যাপার টা অলিখিত ৷ এমনিতে সবাই সাধারন ভাবে সেখানে দাড়িয়ে থাকি, তবে যদি দেখে কোন মহিলা বাচ্চার ভাগেন নিয়ে গেট দিয়ে ঢুকিয়ে দেয়, আমরা যারা দাড়িয়ে থাকি সৌজন্যতা দেখিয়ে জায়গা খালি করে দিই ৷ ঐ জায়গা টা আবার আমার ফেবারিট প্লেস, পিঠে ব্যাগ থাকে তাই শর্ট জার্নিতে ব্যাগ ট্যাগ খুলে বসতে ইচ্ছা করেনা, তাই পিঠে ব্যাগ নিয়েই ওখানে দাড়িয়ে থাকি, বাচ্চার ভাগেন বা ওল্ড পিপলদের ভাগেন আসলে সরে দাড়াই ৷

এক্ষেত্রে বিভিন্ন দিনে চার ভিন্ন কালচারের মহিলার সৌজন্যতা মুলক ব্যবহার পর্যবেক্ষন করলাম ৷

পিউর জার্মান মেয়েঃ ভাগেন নিয়ে ট্রামে ঢুকে পড়লো, জায়গা ছেড়ে দেবার সাথে সাথে তাকিয়ে সুরের তালে বললো ডাংকেশোন (সৌজন্যতা সহ ধন্যবাদ) সাথে ফ্রি মুচকি হাসি, সত্যি বলতে, যদি আমি মোমের তৈরী হতাম, ঐ হাসিতেই গলে ওখানেই লুটোপুটি খেতাম, পেটের মধ্যের সুতা টা শুধু পড়ে থাকতো ৷

প্যানা টাইপের জার্মান মেয়েঃ (যারা জানেনা তাদের কে আগে প্যানা সম্পর্কে একটু অবগত করি ৷ প্যানা রা দেখবেন পুরুষ বা মেয়ে নাকে মুখে চোখে গালে ঠোটে, কানে অসংখ্য দুল এবং পিন আটকে ওপেন প্লেসে মদ গাজা খেয়ে বেড়ায় ৷ যেখানেই যায় নোংরা শপিং ব্যাগ ভর্তি মদের বোতল, এরা ভিক্ষা ও করে বেড়ায়, এদের কেই প্যানা বলি) এদের চেহারায় সব সময় বিরক্ত বিরক্ত ভাব, আর সত্যি বলতে, এদের দেখলে মনে হয়; এরা ভিনদেশিদের পছন্দ করেনা, তাছাড়া বাচ্চা টাচ্চা নিয়ে এরা মোটেই হ্যাপি না, এসব ঝামেলা মনে করে ৷ সরকারী টাকা পয়সার জন্য হয়তো বাচ্চা বহন করে বেড়ায় ৷ যাই হোক ভোটকা প্যানা টাইপের মেয়ে টা বাচ্চার গাড়ি দ্রুত ঢুকিয়ে দেবার সাথে সাথে জায়গা ছেড়ে দেবার পরে ঐ বিরক্ত চেহারা করেই কর্কশ কন্ঠে বললো ডাংকে (ধন্যবাদ), ডাংকের টেস্ট টা সেই রকম বিষাক্ত টাইপের মনে হলো ৷

আফ্রিকান মেয়েঃ যে এসেছিল, স্পেসিফিক তার কথাই বলছি, মাথার চুল পুরাই খেজুর গাছের মত, এনাকে মেয়ে না বলে মহিলা ই বলা উচিত, দেখে মনে হলো বয়স টা মহিলা টাইপের ৷ তো জায়গা ছেড়ে দেবার পর স্বাভাবিক ভাবেই শুধু ডাংকে বললো, ওতে না আছে মধু না আছে বিষ ৷ স্বাভাবিক, পি এইচ সাত মাত্রা নিউট্রাল পানি টাইপের ৷

অ্যারাবিশ মেয়েঃ এরা এমনিতেই কম কথা বলে ৷ যা বলার ফোনে বলে, ফোনে যা বলে, পাশ থেকে শুনলে মনে হয় জোরে জোরে আরবীতে দুয়া পড়তেছে ৷ রাস্তায় বাচ্চার ভাগেন ছাড়া এদের কম ই দেখা যায় ৷ দেখলে মন হয় এদের কাজ ই হচ্ছে বাচ্চার ভাগেন ঠেলে নিয়ে বেড়ানো ৷ মাথায় হিজাব পেচানো দেখে সহজেই আরাবিশদের পার্থক্য করা যায় ৷ যাই হোক ভাগেন ট্রামে ঢুকিয়ে দিলো, জায়গা ছেড়ে দিলাম, ডাংকে বিটের কোন বালাই ই নাই, গম্ভীর মুখ করে বাচ্চার গাড়ির পাশে দাড়িয়ে মোবাইল টিপতে থাকলো, এমন একটা ভাব জায়গা টা তার ন্যায্য পাওনা ছিল, জমি দখলের মত বেদখল করে রেখেছিলাম ৷ ভালো কথা, আরাবিশদের প্রায় সবার মোবাইল ই কিন্তু আইফোন হয় ৷

মাহবুব মানিক
হালে, জার্মানী ৷