আমার সম্পূর্ণ নামের আগে একটা এক্সট্রা দুই অক্ষরের এম. ডি (MD) শব্দ জুড়ে দেয়া আছে ৷ এসএসসির রেজিষ্ট্রেশনের সময় ক্লাশ নাইনে থাকতে জুড়ে দিছিলাম মোহাম্মদ নামের শর্ট ফর্ম হিসেবে ৷ যদিও বাংলাদেশে থাকতে কোন সমস্যা হয়নি, বিদেশে নামের শুরুতে এই এমডি শব্দটা টা নিয়ে চরম ভোগান্তিতে আছি ৷ এটা দিয়ে না হয় কোন অর্থ বোধক শব্দ, উচ্চারন টা এমডি ঐ এমডি ই থাকে যেন ম্যানেজিং ডিরেক্টর ৷ এখানে যে কেউ নাম টা উচ্চারন করতে গেলে নামের উচ্চারনের শুরুতেই ভ্যাবাচ্যাকা খেয়ে যায় ৷ সব থেকে বড় লজ্জার বিষয় হচ্ছে এরা এমডি বলতে ডক্টর বুঝে ৷ যেমন ডাক্তারের কাছে গেলে যখন আমার টার্ম আসে, কম্পাউন্ডার ডাকে ডক্টর রামান (ডক্টর রহমান) বলে ৷

একবার এক প্রফেসর সবার নাম ডাকতেছিল যখন আমার টার্ম আসলো প্রথমে এমডি টুকু পড়েই বলে বসলো, হাউ ফানি নেম!!! হুয়াটইজ দ্যা মিনিং অফ দিছ? আমি বললাম শর্ট ফর্ম অফ মুহাম্মদ ৷ রিপ্লাই শুনে তিনি পরে অবশ্য লজ্জা পেয়েছিলেন ৷ আসলে ওনার তো কোন দোষ নাই, দোষ টা আমাদের ৷ শুধু আমি নই, বাংলাদেশের অনেক কেই দেখছি, শর্ট ফর্মটা লিখতে, আমার মনে হয় এটা ঠিক না ৷ পাকিস্তান, আরব বা ইন্ডিয়ার মুসলিমদের কখনো এমডি ইউজ করতে দেখিনি তারা সরাসরি মুহাম্মাদই ব্যবহার করে ৷ আসলে আমাদের কমন সেন্স এর বড়ই অভাব ৷

আরো একটা জিনিস হচ্ছে নামের শেষে স্রষ্টার নাম গুলা না থাকাই ভালো ৷ কারন নামের শেষ অংশ টা বলতে ফ্যামিলি নেম বোঝায় ৷ স্রষ্টা তো আর আমার ফ্যামিলি বা বংশধর না ৷ যেমন আমার ক্ষেত্রে হইছে ৷ আমার ফ্যামিলি নেম “মোল্লা” সেই ছোট কালেই কামড়ে খেয়ে ফেলছি, খ্যাত খ্যাত লাগতো বলে ৷ বর্তমানে আমার ফ্যামিলি নাম “রহমান” ৷ কি লজ্জার!!!!!! রহমান স্রষ্টার নাম সে আমার ফ্যামিলি নেম ৷ এমন অদ্ভুত নাম দেশে অনেকের আছে ৷ আমার কাছে মনে হয় এটাও ঠিক না, কেমন যেন উদ্ভট ৷ স্রষ্টার নাম শেষে জুড়ে দেয়া টাও বাঙ্গালী মুসলিম পরিবারের স্টাইল ৷

আরবদের নামের শেষে কখনোই স্রষ্টার নাম দেখা যায়না, বা আমি দেখিনি ৷ ধর্মীয় ইমশোনাল হয়ে আন্দাজে মান্দাজে একটা ধর্মীয় নাম জুড়ে দিলেই হলোনা, নামের পুরা অর্থ টা ঠিক বা সুন্দর হলেও হলোনা, প্রথম অংশ আর শেষ অংশ আলাদা করলে যেন অসাঞ্জস্যপুর্ন না হয় বা উদ্ভট না হয় ৷ শেষ অংশ অবশ্যই বংশের নাম হওয়া উচিত, যেমন মোল্লা, মন্ডল, চৌধুরী, শেখ, ফকির ইত্যাদি ইত্যাদি ৷ যদি বংশের নাম এড়ানোর ইচ্ছা থাকে সেক্ষেত্রে পিতার নাম জুড়ে দেয়া যায় ৷ যেমন আমার ক্ষেত্রে বলা যেত মাহবুব বিন সরোয়ার আর বড় ভাইয়ের নাম হাফিজ বিন সরোয়ার, অথচ দুজনই মোল্লা ছেটে ভাব মারতে যেয়ে বাঁশ খেয়ে বসে আছি ৷

পরবর্তী প্রযন্মে যেন এমন অসাঞ্জস্যপুর্ন নাম কখনো না হয়, সেদিকে আমাদের এখনি সতর্ক হওয়া উচিত ৷