9

বার্লিনে ১২ই এপ্রিল থেকে শুরু হয়েছে মার্টিন-গ্রোপিউস-বাউ এ “দি মায়া” প্রদর্শনী যা মেক্সিকান সরকারের এবং জার্মান সরকারের যৌথ উদ্যোগে দুইদেশের দুইটি সংগঠন আয়োজন করেছে। অসাধারন এই প্রদর্শনীতে তে স্থান পেয়েছে অনেক শিলালিপি এবং দুর্লভ সব সামগ্রী। সেই সাথে সুন্দর ভাবে বর্ণনা করা আছে এই সভ্যতায় উত্তরনের ধাপ এবং ইতিহাস। মায়া সভ্যতা মানুষের কাছে বিশ্বয়-কেনই বা তারা মানবদেহকে সৌন্দর্য বর্ধনের  উপকরণ হিসেবে ব্যবহার করতো, কেন তাদের মাথার আকৃতি ভিন্ন, কেনইবা তাদের দেহের নানান অংশ নানান ভাবে পরিবর্তন করা? এসবের উত্তর মিলবে এই প্রদর্শনীতে। অডিও গাইড সাথে নিলে আরো ভালোভাবে বুঝতে পারবেন ঘটনাগুলো। কোন রং কেন ব্যবহার করা হতো, মৃত্যুর মানেই বা কি? কোন প্রানীকে তারা কিসের প্রতিকৃতি মনে করতো? আরো দেখা পাবেন মানব সভ্যতার ইতিহাসের সহিংসতার কিছু নিদর্শন। কিভাবে জীবন্ত শত্রুর বুক থেকে হৃতপিন্ড বের করে নেয়া হতো বা কিভাবে শাসকেরা তাদের নিজের অঙ্গ থেকে রক্তক্ষরণ করে দেবতাকে তুষ্ট রাখতেন ইত্যাদি নানান কথা।

p.c. Weihrauchgefäß. Postklassik, 1250–1527 n. Chr., Mayapán, Yucatán
© INAH. Museo Regional de Antropología. Palacio Cantón, Mérida, Yucatán

এই প্রদর্শনীটি চলবে ৭ই আগস্ট, ২০১৬ পর্যন্ত। জার্মানিতে থাকলে এই সুযোগ হেলায় হারাবেন না। ঘুড়ে যান

“Die Maya – Sprache der Schönheit”

প্রতি বৃহস্পতিবার থেকে সোমবার সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত প্রদর্শনীটি চলবে