একটা আলোচনা করি আপনার সাথে আমাদের ব্রেন আর জুতার ফিতা নিয়ে। নতুন জুতা কিনলে অথবা নতুন মোবাইল কি বোর্ড যা আপনি কখনও ব্যবহার করেননি তখন প্রথম কিছুদিন ব্রেন একটু সময় নিয়ে কাজটা বুঝার চেষ্টা করে। কিন্তু কিছুদিন পর দেখবেন আপনার ব্রেন আপনা আপনি করছে সেই কঠিন কাজ, করছে সহজেই এবং আমার উপদেশ আপনারা কিছুদিন ব্রেনকে ইংরেজি পড়ার অভ্যাস করান। মনে রাখবেন এটা একটা “স্কিল” যেমন ক্রিকেট খেলা, ফুটবল অথবা সাইকেল চালানোর জন্য যেমন শুধু বই পড়ে আপনি পারবেন না তেমনি রিডিং এর জন্য দরকার যেকোনো মজার কিছু পড়া।

আমরা যারা বিদেশি মুভি দেখি তারা অনেক সময় কিন্তু অনেক কথা না বুঝলেও কাহিনীর প্রেক্ষাপটে কথা বুঝার চেষ্টা করি।একটা সময় পর কিন্তু আমরা সেই কথা এর অনেক কিছুই নিজের অজান্তে শিখে ফেলি অথবা বুঝতে পারি। তাই ইংরেজি কঠিন শব্দের অর্থ না জানলেও পড়তে থাকুন এবং অনুমান করার চেষ্টা করুন অর্থ কিন্তু বেশি বেশি পড়তে থাকেন এবং ব্রেনকে রিডিং এর সমস্যা মোকাবেলার সুযোগ দিন। প্রথম প্রথম ভালো লাগানোর জন্য মজার মজার জিনিস দিয়ে শুরু করুন। মনে রাখবেন আপনার বয়স, পেশা, ডিগ্রি, বুদ্ধিমত্তা কোন কিছুই আপনার জন্য বাধা হবে না, যদি আপনি সত্যিকার ভাবে চেষ্টা করেন। গুগল থাকলে আপনার আছে আলাদিন এর প্রদীপ, আর না থাকলে কিছু পুরাতন মজার মজার বই কিনে নিয়ে আসেন সেটা সম্ভব না হলে পত্রিকার ম্যাগাজিন গুলো পড়েন।

আপনার রুমের দেয়ালে লিখুন আপনি রিডিং এ কাঙ্খিতস্কোর কত পেতে চান! তারপর এমন ভাবে রুম এ রাখেন যাতে আপনার চোখের সামনে বার বার লেখা টা আসে এবং এটা আপনার মনের শক্তি বাড়াবে। যদি লাজুক লাজুক লজ্জাবতী টাইপ এর হোন,তাহলে প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠার পর, গোসলের সময় অথবা অবসরে আপনার মনকে মনে করান আপনার পড়তে হবে। ভাই আমারে পাগল মনে হইতেসে সেক্ষেত্রে কিছু করার নাই কিন্তু দেখেন না হয়তো আমার পাগলামিও আপনার কাজে লাগতে পারে।পড়ুন পড়ুন পড়ুন!

-রায়হান

5 techniques to speak any language | Sid Efromovich | TEDxUpperEastSide