জার্মানিতে আসার প্রায় এক বছর হচ্ছে। একটা স্বপ্নের পিঠে চেপে প্রায় ৮০০০ কিমি দূরে এসে আমদেরকে প্রতিনিয়ত আমাদের স্বপ্নের সাথে কিছু না কিছুর Trade-off করতে হয়। সময়ের সাথে, ভাষার সাথে, চাকরি আর পড়াশুনার সাথে, দেশে থাকা wife-parents-friends আর relativesদের সাথে, বৈশাখের কালবৈশাখীর সাথে, বর্ষার ঝুম বৃষ্টির সাথে বা শীতের হাড়কাপানো শৈত্যপ্রবাহের সাথে। অথবা রাস্তার পাশের চটপটি-ফুচকা-টং এর চায়ের সাথে,বন্ধুদের সাথে দলবেধে পুরান ঢাকায় খেতে যাবার সাথে বা গুড়িগুরি বৃষ্টির মাঝে বউয়ের সাথে রিক্সায় ঘোরার সাথে। অসংখ্য অনুভূতির সাথে আমদের প্রতিটা দিন Trade off করতে হচ্ছে।।

আর কয়েকদিন পর ঈদ(in fact কবে ঈদ সেটাও ঠিকভাবে জানি না )। গত প্রায় এক বছরে মাঝে সবচাইতে বড় Trade-offটা মনে হয় এই ঈদে করতে হবে। কি বিচিত্র Trade-Off। এবার প্রথম রোযা থেকে ক্যালেন্ডার দেখা নাই। রমযান মাসে office hour ছয় ঘন্টা হয়ে যাওয়া নাই।ঈদের ছুটি না পাবার টেনশন নাই। ব্যাংকের account এ ঈদের বোনাস জমা হবার আনন্দ নাই। ঈদে বাড়ি যাবার টিকিটের চিন্তা নাই। বন্ধুদের সাথে দল বেধে বাড়ি যাবার ফুর্তি নাই। চন্দ্রা থেকে যমুনা ব্রীজ পর্যন্ত দীর্ঘ যানযট নাই। ঘন্টার পর ঘন্টা রাস্তায় বসে থাকার যন্ত্রনা নাই। ঈদের দিন সকালে আব্বুর সাথে নামাজ পড়তে যাওয়া নাই-নামাযের পর আম্মুর হাতের ঝাল পোলাও আর গরুর ভুনাও নাই। বিকালে বউয়ের সাথে ঘুরতে বের হওয়া-সন্ধায় জিলা স্কুলের সামনে আড্ডা বা রাতে শশুরবাড়ির খানাও নাই। আর ঈদে আমার ওয়ারড্রবের ড্রয়ার ভর্তি নতুন কাপড়ও নাই। আরও কতকিছু নাই এবার। কপাল ভাল হলে ঈদ এবার রবিবার আর খারাপ হলে সোমবার। রবিবার হলে হয়ত নামায পড়ে কিছু একটা করা হবে-আর সোমবার হলে? নামায পড়েই দৌড়াইতে হবে প্রফেসর গলম্যানের ক্লাসে। কি বিচিত্র। ঈদের দিন এখানে কোন উৎসব নাই। আর আট-দশটা দিনের মতই খুব সাধারন আর সাদামাটা একটা দিন। সারা বছর আমরা যত কিছুর সাথে Trade-off  করি তার চাইতেও বেশি কিছুর সাথে Trade-off করতে হবে এই ঈদের দিনে। স্বপ্নের সাথে আনন্দের Trade-off.

জার্মান প্রবাসে ঈদ ইদ, GermanProbashe Eid

ব্যাপারগুলো চিন্তা করলে চোখে পানি চলে আসে। কিন্ত এই Trade-off তো আমরা একা করছি না। আমাদের পরিবারের প্রত্যেকেই Trade-off করছে। so,এই সময়টা পিছনে ফিরে তাকিয়ে মনের জানালা বন্ধ করে বসে থাকার নয়। এই সময়টা স্বপ্নের পিছে ছোটার। এই সময়টা স্বপ্নের সাথে সবকিছুর Trade-off করার।

আর ঈদ? ঈদের আনন্দ জমা থাকনা মনের এককোনে। উড়োজাহাজের চাকা যেদিন হযরত শাহজালাল ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টের রানওয়ে স্পর্শ করবে সেদিনটাইতো আমাদের  ঈদ। ঈদ মানে আনন্দ। ঈদ ঈদের যায়গায় থাকবে। শুধু আমদের সেটা উদযাপনের patternটা একটু change হয়ে যাবে এই আরকি।

দেশ আর প্রবাসের সকল স্বপ্নসারথিদের ঈদের অগ্রিম শুভেচ্ছা আর শুভকামনা।