ছোট ভাইদের অনেক দিনেরঅভিযোগ, আমি শুধু খাবারের পিক দেই, কিন্তু খাওয়াইনা। এক গ্রুপ তো নিজেদের বঞ্চিত বলেই ঘোষণা দিল। তাই জন্মদিনে না খাওয়িয়ে আর পারলাম না। আমার সাধ্যে যতটুকু কুলায়, খুব সাদা-মাঠা আয়োজন। পুঁইশাক-চিংড়ির তরকারি, লাল-শাক, ডাল, ডিম-পোঁচ কারি আর আমার খুব প্রিয় শিম-আলু-ফুলকপি ভাজি। সবজিগুল সবই বাংলাদেশ থেকে ইম্পোর্টেড। তাই একটা আলাদা ইমোশন ছিল। তবে পুঁই আর লাল, দুটো শাকই রান্না করতে গিয়ে মহা বিপদে পড়তে হয়েছে। শাক হল নারী জাতির মত, ছলনাময়ী! রান্নার আগে অনেকগুল মনে হয়,কিন্তু রান্নার পর রূপ বদলে যায়। চুপসে আর খুজে পাওয়া যায়না! চিংড়ির মাঝে পুঁই গুলোকে মাইক্রোস্কোপ দিয়ে খুজে বের করতে হয়েছে! ইভেন শাকে লবণও ছলনা করে। কত যত্ন করে কি সামান্য লবণই  না দিয়েছিলাম, কিন্তু রান্নার পর কত লবণই না এল। ছোট ভাইরা, আজ তোমরা যে পরিমান লবণ খেয়েছো, আশাকরি সারা বছর তোমাদের লবণ না খেলেও চলবে, গোটা বছরের লবণের চাহিদা পূরণ করে দিয়েছি।

 

যাই হোক, অসম্ভব সুন্দর একটা দিন পার করলাম, সেলেব্রিটির মত। উইশে সেঞ্ছুরি করেছি, কিছু গিফট ও পেয়েছি! Navid Anwar এবং Mohibullah Kamal কে many many thanks গিফট গুলোর জন্য। নাভিদ, মামা তোমার শক্ত ধাতব চাবির রিঙটা শুধু চাবিই নয়, আত্মরক্ষারও কাজে দিবে। আর মুহিব, তুমি এত সুন্দর করে বেলি ফুলের সেন্টের শিশিটা লাল-নীল তারা একে র‍্যাপিং করেছ, আমি তোমার র‍্যাপিং পেপারটাও রেখে দিয়েছি। you have a wonderful creative mind তুমি কি সেটা জান?

বুখারি শরিফের একটা হাদিস আছে, ”এমন দুটি নেয়ামত, যে বিষয়ে অধিকাংশ মানুষ ধোঁকায় পতিত। তা হলঃ সুস্থতা আর আবসর সময়!”… পরম করুনাময়ের কাছে অসংখ্য অসংখ্য শুকরিয়া আমি নতুন বছরটা সুস্থ-সবল ভাবে শুরু করতে পেরেছি এবং এত ব্যাস্ততার মাঝেও আজকে একটু আবসর বের করে সবার সাথে সুন্দর কিছু মুহূর্ত কাটাতে পেরেছি। আমার বাবা সব সময় একটা কথা বলেন, “শুকরিয়া করলে শেষ নাই”- কথাটা আসলেও অদ্ভুত সত্য। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন।

তপু,

৭/১/২০১৫


ছবিমালা

12345