আমার লেখালেখি তে অভ্যাস খুব কম। আর কাও কে পরামর্শ দেওয়ার মত আমি কেও নই । তবুও ভার্সিটির জুনিওররা মাঝে মধ্যে কিছু জিজ্ঞাসা করে । আমার লেখাটা মূলত ইইই ও টেলিকম ইঞ্জিনিয়ারদের  জন্য। অবশ্যই যারা সাধারণ মানের ছাত্রছাত্রী তাদের জন্য ।

ব্যাচেলর শেষ করার পর প্রধানত ৩ টি রাস্তা থাকে –

১) সরকারি চাকরি  এবংডেসকো বা এই ধরনের চাকরি।

২) বেসরকারি চাকরি ।

৩) উচ্চশিক্ষার জন্য  দেশের বাইরে যাওয়া।

সরকারি চাকরি  এবংডেসকো বা এই ধরনের চাকরিঃ

দেশে থাকতে হলে আমার কাছে মনে হয় এইটাই প্রথম পছন্দ হওয়া উচিৎ। তবে এই ক্ষেত্রে অনেক প্রতিযোগীতা এবং অনেক সময় ও ধৈর্য লাগে । এছাড়া আর ও অনেক কারন আছে যার জন্য অনেকে এই গুলার পেছনে ছুটতে পারেন না ।

বেসরকারি চাকরিঃ

এই টা হচ্ছে সব থেকে ফালতু এবং বাজে সিস্টেম । এক জন মানুষের ভবিষ্যৎ শেষ করার জন্য যথেস্থ । কিন্তু অধিকাংশ মানুষই এই টাই বেছে নেয়। বাংলাদেশের  টপ লেভেলের একটা মালটিন্যাশনাল কম্পানি তে চাকরি করার পর আমার এই ধারনা হয়েছে । দেশি কম্পানির কি অবস্থা হতে পারে তা খুব ভাল ভাবে অনুমান করা যায়।

উচ্চশিক্ষার জন্য  দেশের বাইরে যাওয়াঃ

বাংলাদেশের বাইরে এক জন ইঞ্জিনিয়ার কে যে সন্মান করা হয় তার ১০% ও বাংলাদেশে করা হয় না । দেশের বাইরে যাওয়ার জন্য মোটামুটি ৩ টা মহাদেশ পরিচিত ।

  • উত্তর আমেরিকা
  • অস্ট্রেলিয়া
  • ইউরোপ

 

উত্তর আমেরিকাঃ

আমেরিকা তে যেতে হলে সিজিপিএ  খুব একটা ইস্যু হয় না। এছাড়া ফান্ড ও অনেক পাওয়া যায় । তবে এ ক্ষেত্রে জিআরই এবং টোফেল এ ভাল স্কোর থাকতে হয় । এছাড়া পাবলিকেশন ও থাকতে হয় । এর পর নিজের পছন্দের ট্রপিক অনুযায়ী প্রফেসর খুজে মেইল করা । ১০০০ টা মেইল করলে ৫ টা উত্তর পাওয়া । ফুল ফান্ড না পাইলে ভিসা পাওয়া তে ঝামেলা করে। তবে একবার ফান্ড পেয়ে গেলে শান্তি তে লেখাপড়া করা যাবে । এবং লেখাপড়া শেষে ভাল একটা চাকরি পাওয়া যায় । শুরুতে মাসিক ৭০০০ ডলার এর মত পাওয়া যায়। সুতরাং যারা এই ঝামেলা গুলা পার করতে পারবেন তারা ভাল ভবিষ্যৎ এর আশা করতে পারেন ।

কানাডাঃ

আর এক স্বপ্নের দেশ কানাডা । তবে আমি যত দূর জানি এখানে ফান্ড খুব কম এবং খুব ভাল রেজাল্ট ছাড়া ভর্তি হওয়া যায় না । তবে আপনার টাকা নিয়ে সমস্যা না থাকলে মোটামুটি  রেজাল্ট নিয়ে ও যাওয়া যায়। তবে এখানে জব মার্কেটে অনেক প্রতিযোগীতা করতে হয়।

অস্ট্রেলিয়াঃ

এই খানে ও  আমেরিকার মত শিক্ষা একটা বিজনেস । এখানে ফান্ড নেই বললে চলে । তাই আপনার টাকা নিয়ে সমস্যা থাকলে এবং আপনি মোটামুটি মানের স্টুডেন্ট হলে অ্যাপ্লাই না করা ভাল ।

ইউরোপঃ

ইউরোপের অনেক গুলা দেশের মধ্যে অধিকাংশ দেশে টিউশন ফি দিতে হয়। এছাড়া সব দেশের অর্থনীতি ভাল না । ভাষার একটা সমস্যা থাকে । তবে জার্মানি ফিনল্যান্ড সহ বেশ কিছু দেশে টিউশন ফি নাই। এখানে জব মার্কেট ও এখন পর্যন্ত ভাল মনে হয়েছে । তবে প্রোগ্রামিং এবং ভাষা খুব জরুরি। যদিও আমি দুই টার কোন টা না পেরে ও ৮-৯ মাস টিকে আছি । তবে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এই দুই টা আয়ত্ত করতে পারলে মাস্টার্স শেষ করে ভাল একটা জব পাওয়া খুবই সম্ভব মনে হয়েছে আমার কাছে ।

আর জার্মানি নিয়ে এই ব্লগে অনেক লেখা আছে । তাই আমার আর তেমন কিছু লেখার নাই । তবে আমার অভিজ্ঞতা শেয়ার করব অন্য কোন দিন ।

আশা করি কিছু হলে ধারনা দিতে পেরেছি । যদিও সম্পূর্ণ আমার নিজের মতামত তাই যে কোন বিষয়ে  অন্যের  সাথে মতের পার্থক্য হতে পারে এবং আমার ধারনা ভুল ও হতে পারে।